আওয়ামী লীগের তাপস-আতিক! বিএনপির ইসরাক-তাবিথ - Coxsbazarkontho.com

বুধবার, ২৯ জানুয়ারী ২০২০ ১৫ই মাঘ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

বুধবার

প্রকাশ :  ২০১৯-১২-২৮ ১৮:৫৭:৫১

আওয়ামী লীগের তাপস-আতিক! বিএনপির ইসরাক-তাবিথ

আসন্ন ঢাকার দুই সিটি করপোরেশন নির্বাচনে মেয়র পদে বিএনপি থেকে উত্তরে তাবিথ আউয়াল ও দক্ষিণে ইসরাক হোসেন মনোনয়ন পেয়েছেন। আওয়ামী লীগের প্রার্থীও চূড়ান্ত হয়েছে, আজ আনুষ্ঠানিকভাবে জানানো হবে। তবে গণভবনের দায়িত্বশীল সূত্র সংবাদকে নিশ্চিত করেছে, উত্তরে আতিকুল ইসলাম ও দক্ষিণে ব্যারিস্টার শেখ ফজলে নূর তাপস পাচ্ছেন আওয়ামী লীগের মনোনয়ন। বড় দুটি দলের প্রার্থী ঘোষণার মাধ্যমে আজ থেকে জমে উঠবে নির্বাচনী পরিবেশ। ৩০ জানুয়ারি অনুষ্ঠিত হতে যাওয়া নির্বাচনে মূলত এই চার প্রার্থীর মধ্যেই শক্ত প্রতিদ্বন্দ্বিতা হবে বলে ধারণা রাজনৈতিক বিশ্লেষকদের।

শনিবার (২৮ ডিসেম্বর) সন্ধ্যায় আওয়ামী লীগের স্থানীয় মনোনয়ন বোর্ডের সভা অনুষ্ঠিত হয়। পরে দলের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেন, আমাদের অনেক প্রার্থী। তাদের নিয়ে আলোচনা করেছি। রোববার আনুষ্ঠানিকভাবে নাম ঘোষণা করবো আমরা। ১২টায় আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনার ধানমন্ডি রাজনৈতিক কার্যালয়ে দলের মেয়র প্রার্থীদের নাম ঘোষণা করা হবে।

Advertisements

প্রার্থী চূড়ান্ত হওয়ার বিষয়ে তিনি কোন কথা বলেননি। কিন্তু যেহেতু কাল সকালে ঘোষণা হবে এবং এর মধ্যে স্থানীয় সরকার মনোনয়ন বোর্ডের সভাও হবে, সে হিসেবে ধরেই নেয়া যায় আওয়ামী লীগ তাদের প্রার্থী চূড়ান্ত করেছে। এখন নাম ঘোষণা বাকি।

গণভবন ও বৈঠকে উপস্থিত দায়িত্বশীল সূত্র সংবাদকে জানায়, আতিকুল ইসলাম ও ব্যারিস্টার ফজলে নূর তাপসকে চূড়ান্ত মনোনয়ন দেয়ার বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। এমনকি তাপস রাতে আনুষ্ঠানিক প্রতিক্রিয়াও জানাতে চেয়েছিলেন। তবে আনুষ্ঠানিক ঘোষণা না হওয়ায় তিনি তা পিছিয়ে দিয়েছেন। অপর একটি সূত্র বলছে, কিছু একটা গোলমাল কিংবা চমক থাকতে পারে। নয়তো প্রার্থী চূড়ান্ত করার পরও কেন ঘোষণা করা হলো না। সে হিসেবে হয়তো রাতে সম্ভাব্য প্রার্থীদের নিয়ে নেত্রী বৈঠক করতে পারেন এবং তখনই প্রার্থী চূড়ান্ত হবে।

সংশ্লিষ্টরা বলছেন, চারজনই হেভিওয়েট প্রার্থী। উত্তরের দুই প্রার্থী একই সিটিতে এর আগেও নির্বাচন করেছেন। তারা ওই সিটির ভোটারদের সমস্যা সম্পর্কে জানেন। তাই তাদের মধ্যে কঠিন লড়াই হবে। দক্ষিণে এক প্রার্থী নতুন হলেও অন্য প্রার্থীর দীর্ঘদিনের রাজনৈতিক ব্যাকগ্রাউন্ড রয়েছে। তিনি বঙ্গবন্ধু পরিবারের সদস্য। তবে অপর প্রার্থীর বাবা ঢাকার সাবেক মেয়র ছিলেন। তার বেশ জনপ্রিয়তা আছেন। ভোটে সেটি কাজে লাগবে। ফলে সব মিলিয়ে দুই সিটিতেই তীব্র প্রতিদ্বন্দ্বিতা হবে বলে মনে করছেন তারা।

ঘোষিত তফসিল অনুযায়ী, ৩১ ডিসেম্বর মনোনয়নপত্র জমা দেয়া শেষ দিন। মনোনয়নপত্র যাচাই-বাছাই ২ জানুয়ারি। প্রার্থিতা প্রত্যাহার ৯ জানুয়ারি, প্রতীক বরাদ্দ হবে ১০ জানুয়ারি। রিটার্নিং কর্মকর্তার সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে আপিল কর্তৃপক্ষের কাছে আপিল করা যাবে ৫ জানুয়ারি পর্যন্ত। আপিল কর্তৃপক্ষ হিসেবে ঢাকা বিভাগীয় কমিশনারকে নিয়োগ করেছে নির্বাচন কমিশন। আতিকুল ইসলাম : ১৯৬১ সালের ১ জুলাই জন্মগ্রহণ করেন আতিকুল ইসলাম। তার পৈতৃক নিবাস কুমিল্লা জেলার দাউদকান্দি উপজেলায় (বর্তমান তিতাস উপজেলা)। তার পিতার নাম মমতাজউদ্দিন আহমেদ ও মাতার নাম মাজেদা খাতুন। আতিকুল বিএএফ শাহীন স্কুল ও কলেজ থেকে মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক সম্পন্ন করেন। তিনি ২০১৯ সালের ২৮ ফেব্রুয়ারি ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের উপ-নির্বাচনে মেয়র হিসেবে নির্বাচিত হন। ২০১৩-১৪ মেয়াদে বাংলাদেশ পোশাক প্রস্তুতকারক ও রপ্তানিকারক সমিতির (বিজিএমইএ) সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন তিনি। আতিকুলের ভাই তাফাজ্জাল ইসলাম বাংলাদেশের ১৭তম প্রধান বিচারপতি হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন। আতিকুলের স্ত্রী ডেন্টাল সার্জন শায়লা সাগুফতা ইসলাম। তাদের এক মেয়ে।

তাবিথ আউয়াল : আবদুল আউয়াল মিন্টুর বড় ছেলে তাবিথ আউয়াল। তিনি মাল্টিমোড গ্রুপের পরিচালক হিসেবে নিয়োজিত রয়েছেন। এছাড়াও বেশ কয়েকটি প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে জড়িত আছেন তিনি। বিএনপির কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য তাবিথ বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনের সহসভাপতি। তাবিথের শ্বশুর হচ্ছেন ইঞ্জিনিয়ার ইস্কান্দার আলী। তাবিথ স্থানীয় আমেরিকান ইন্টারন্যাশনাল স্কুল থেকে ‘ও’ লেভেল (অর্ডিনারি লেভেল) ও ‘এ’ লেভেল (অ্যাডভান্স লেভেল) পাস করেছেন। যুক্তরাষ্ট্রের বিখ্যাত জর্জ ওয়াশিংটন ইউনিভার্সিটি থেকে ব্যবসায় প্রশাসনে (বিবিএ) স্নাতক এবং তথ্য ব্যবস্থাপনা বিজ্ঞানে স্নাতকোত্তর (এমএসসি) ডিগ্রি অর্জন করেছেন। তাবিথ ২০১৫ সালে ডিএনসিসি নির্বাচনে প্রার্থী হয়েছিলেন। প্রয়াত মেয়র আনিসুল হকের বিরুদ্ধে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেছিলেন তিনি। কিন্তু ভোট শুরু হওয়ার কয়েক ঘণ্টা পরেই তা বর্জনের ঘোষণা দেন।

আসন্ন নির্বাচনে ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনে (ডিএসসিসি) ৭৫টি সাধারণ ওয়ার্ড ও ২৫টি সংরক্ষিত ওয়ার্ড রয়েছে। এ নির্বাচনে ১ হাজার ১২৪টি ভোটকেন্দ্রের ৫ হাজার ৯৯৮টি কক্ষে ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে। মোট ২৩ লাখ ৬৭ হাজার ৪৮৮ জন এ নির্বাচনে ভোটাধিকার গ্রয়োগের সুযোগ পাবেন। ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন (ডিএনসিসি) ৫৪টি সাধারণ ওয়ার্ড ও ১৮টি সংরক্ষিত মহিলা ওয়ার্ড নিয়ে গঠিত। এ নির্বাচনে ১ হাজার ৩৪৯টি ভোটকেন্দ্রের ৭ হাজার ৫১৬টি কক্ষে ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে। মোট ৩০ লাখ ৩৫ হাজার ৬২১ জন তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগের সুযোগ পাবেন।

Advertisements

ফজলে নূর তাপস : শেখ ফজলে নূর তাপস পেশায় আইনজীবী। তিনি ১৯৯৭ সালে ইংল্যান্ড থেকে বার এট ল ডিগ্রি লাভ করেন। ২০০৮ সালে প্রথমবারের মতো সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন এবং পরপর তিনবার ধানমন্ডি, নিউমার্কেট, হাজারীবাগ এলাকা থেকে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়েছেন। তার নির্বাচনী এলাকা হলো ঢাকা-১২। তিনি বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগের প্রতিষ্ঠাতা শেখ ফজলুল হক মনির ছেলে। ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের পরিবারসহ আরও যাদের হত্যা করা হয়েছিল তাদের মধ্যে তাপসের বাবা ফজলুল হক মণি ও মা আরজু মণিও ছিলেন।

ইসরাক হোসেন : ঢাকার সাবেক মেয়র সাদেক হোসেন খোকার ছেলে ইসরাক। পেশায় মেকানিক্যাল ইঞ্জিনিয়ার। স্কলাস্টিকা স্কুল থেকে ‘ও’ লেভেল এবং ‘এ’ লেভেল শেষে হার্টফোর্ডশায়ারে মেকানিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিংয়ে আন্ডার গ্র্যাজুয়েশন, মাস্টার্স শেষ করেছেন তিনি। রাজনীতিতে একেবারেই নতুন সাদেক হোসেনের ছেলে ইসরাক।

দলীয় প্রার্থীদের নাম ঘোষণার সময় মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, আপনারা জানেন এই সরকার ও নির্বাচন কমিশনের অধীনে সুষ্ঠু নির্বাচন কিছুতেই সম্ভব না। তারপরও গণতন্ত্র চর্চার ন্যূনতম সুযোগটা আমরা গ্রহণ করতে চাই। সে কারণে ঢাকা উত্তর-দক্ষিণ সিটি করপোরেশন নির্বাচনে আমরা অংশ নিচ্ছি। দুই সিটিতে আমাদের তিনজন আগ্রহী প্রার্থী ছিল। এই তিনজনের সঙ্গে কথা বলে আমরা দু’জনকে চূড়ান্তভাবে দলীয় মনোনয়ন দিয়েছি।

আরো সংবাদ