আ.লীগের সম্মেলনে বিএনপি-জামাত থেকে অনুপ্রবেশের হিড়িক - Coxsbazarkontho.com | Newspaper

মঙ্গলবার, ১২ নভেম্বর ২০১৯ ২৭শে কার্তিক, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

প্রকাশ :  ২০১৯-১১-০২ ১৮:৪৯:৪২

আ.লীগের সম্মেলনে বিএনপি-জামাত থেকে অনুপ্রবেশের হিড়িক

জসিম উদ্দিন সিদ্দিকী: কক্সবাজারে পৌর আওয়ামীলীগের বিভিন্ন ওয়ার্ড কমিটি গঠনেও দুর্ণীতিবাজ ও অনুপ্রবেশকারীদের দৌরাত্ম্য থেমে নেই। তারা টাকার বিনিময়ে বিভিন্ন ওয়ার্ড কমিটিতে স্থান করে নিতে মরিয়া বলে অভিযোগ উঠেছে। এদের মধ্যে মাদক ও বিভিন্ন মামলার আসামীরাও রয়েছে।

Advertisements

বিভিন্ন সূত্রে জানা গেছে, আগে জামায়াত-বিএনপির রাজনীতি করলেও বর্তমানে আওয়ামীলীগের কমিটিতে অনুপ্রবেশ করছেন নির্বিঘেœই। অথচ, প্রধানমন্ত্রী এসব অনুপ্রবেশকারী ও দুর্ণীতিবাজদের বিরুদ্ধে বর্তমানে শুদ্ধি অভিযান পরিচালনা করছেন। এরপরেও থেমে নেই এসব দুর্ণীতিবাজ ও অনুপ্রবেশকারীদের দৌরাত্ম্য। তৃণমূল পর্যায়ের অনেক নেতাকর্মী এনিয়ে ত্যক্ত-বিরক্ত হয়ে পড়েছেন। শীর্ষ নেতাদের কাছে এবিষয়ে তারা মুখ খুলতেও ভয় পাচ্ছেন। কারন দুর্ণীতিবাজ ও অনুপ্রবেশকারীরা কিছু শীর্ষ নেতার আশির্বাদপুষ্ট। ইতোমধ্যে ১নং ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের সম্মেলন সম্পন্ন হয়েছে। সেখানে পূর্ণাঙ্গ কমিটিতে বিএনপি-জামায়াতের নেতারা স্থান করে নেওয়ার চেষ্টা করছেন! অনুপ্রবেশের চেষ্টা করছেন বিএনপি থেকে স্বেচ্ছাসেবকলীগে জসিম বহদ্দার ও আবদুল মান্নান, ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের অনুপ্রবেশের চেষ্টায় আছেন আবুল কাসেম, জেলা যুবলীগে জানু বহদ্দার এবং জেলা বিএনপি সদস্য কাউন্সিলর আকতার কামাল শহর আওয়ামীলীগের কমিটিতে ঢুকার চেষ্টা করছেন। অভিযোগে আরো জানা গেছে, কক্সবাজার পৌর আওয়ামীলীগে ২০১৭ ইং সনে অনুপ্রবেশ করেন জনৈক ওসমান গণি টুলু। বর্তমানে তিনি পৌর আওয়ামীলীগের সদস্য বলে জানা গেছে। আওয়ামীলীগে অনুপ্রবেশের আগে তিনি জামায়াতের রাজনীতিতে সক্রিয় ছিলেন বলে অভিযোগ রয়েছে। ইতোপূর্বে কক্সবাজার জেলা সদর হাসপাতালে সৃষ্ট সহিংস ঘটনার মূল হোতাও তিনি। সহিংসতার ওই মামলার আসামীও তিনি।
Advertisements

তিনি বর্তমানে বোল পাল্টিয়ে আওয়ামীলীগের রাজনীতি করছেন। পৌর এলাকার ৬নং নতুন বাহারছড়া ২নং ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের আগামী ৫ নভেম্বরের সম্মেলনকে কেন্দ্র করে এই অনুপ্রবেশকারী সভাপতি পদ ভাগিয়ে নেওয়ার জন্য জোর তদ্বির ও লবিং চালিয়ে যাচ্ছেন বলে অভিযোগে জানা যায়। তবে, নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক কক্সবাজার পৌর আওয়ামীলীগের এক নেতা জানান, টুলু আগে আগে বিএনপি-জামায়াতের রাজনীতির সাথে সক্রিয় ছিলেননা। কোনও রাজনীতি করতেননা। মজার বিষয় হলো, বর্তমানে তার ভাই নাসির উদ্দীন বাচ্চু জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের সিনিয়র সহ সভাপতি, অপর ভাই ফরিদ আলম জামায়াত নেতা বলে জানা গেছে। একই ওয়ার্ডের বর্তমান কাউন্সিলর মিজানুর রহমানও আগে যুবদল করতেন বলে অভিযোগ রয়েছে। তিনিও সভাপতি পদ পেতে মরিয়া। একই ওয়ার্ডের ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক ছিলেন, মো. ফেরদৌস। তিনিও ২নং ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক পদের জন্য ফরম নিয়েছেন।

এই ওয়ার্ডের কাউন্সিলর শাহেনা আকতার পাখি সাবেক যুব মহিলা দল নেত্রী ছিলেন। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক স্থানীয় কিছু ত্যাগী নেতাকর্মীর বক্তব্য হলো, এধরনের অনুপ্রবেশকারীরা গুরুত্বপূর্ণ পদ ভাগিয়ে নিলে দলের ভবিষ্যত অনিশ্চিত হয়ে পড়বে। ইতোমধ্যে কক্সবাজার পৌর আওয়ামীলীগের ৩টি ওয়ার্ডের সম্মেলন সম্পন্ন হয়েছে। বাকী আছে আরো ১০টি। এখন দেখার বিষয় বাকী ওয়ার্ড সম্মেলনের অবস্থা কেমন হয়! তাই ত্যাগী নেতাকর্মীরা সেদিকে তাকিয়ে রয়েছে। এবিষয়ে কক্সবাজার জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি এডভোকেট সিরাজুল মোস্তফা বলেন, প্রধানমন্ত্রী ও কেন্দ্র থেকে সুস্পষ্টভাবে নির্দেশনা দেওয়া আছে দলে যাতে কোন ধরনের অনপ্রবেশ যাতে না ঘটে। তবে কেউ ভুলক্রমে অনুপ্রবেশ করলে পূর্ণাঙ্গ যাচাইয়ে বাদ দেওয়া হবে বলে জানান তিনি।

আরো সংবাদ

আর্কাইভ ক্যালেন্ডার
নভেম্বর ২০১৯
সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
« অক্টোবর    
 
১০
১১১২১৩১৪১৫১৬১৭
১৮১৯২০২১২২২৩২৪
২৫২৬২৭২৮২৯৩০