ইউএনএইচসিআরের অর্থায়নে সদর হাসপাতালে আইসিইউ চালু - কক্সবাজার কন্ঠ । কক্সবাজারের মুখপত্র

রোববার, ১২ জুলাই ২০২০ ২৮ আষাঢ়, ১৪২৭

প্রকাশ :  ২০২০-০৬-২০ ১০:২৬:৩২

ইউএনএইচসিআরের অর্থায়নে সদর হাসপাতালে আইসিইউ চালু

জসিম সিদ্দিকী : অনলাইন প্লাটফর্মে কক্সবাজার জেলা সদর হাসপাতালে ১০ শয্যাবিশিষ্ট আইসিইউ এবং ১০ শয্যাবিশিষ্ট এইচডিইউ ইউনিটের কার্যক্রম উদ্বোধন হয়েছে। অবশেষে এর মাধ্যমে কক্সবাজারের মানুষের দীর্ঘদিনের আশা পূরণ হল। এতে কোভিড-১৯ প্রতিরোধে কক্সবাজারে চিকিৎসা সেবা সক্ষমতায় নতুন ধাপ সংযোজিত হল। উদ্বোধন হওয়া আইসিইউ ও এইচডিইউ’র ১৮টি বেড সম্পূর্ণ জাতিসংঘের শরণার্থী বিষয়ক হাইকমিশন ইউএনএইচসিআরের অর্থায়নে দেয়া হয়েছে। ২০ জুন সকাল ১১ টায় অনলাইন প্লাটফর্মে কক্সবাজার জেলা সদর হাসপাতালে নতুনভাবে বিশেষায়িত ভেন্টিলেটরসমৃদ্ধ আইসিইউ ও এইচডিইউ’র ১৮টি বেড চালু করা হয়েছে। কক্সবাজার সদর আসনের এমপি ও হাসপাতালের ব্যবস্থাপনা কমিটির সভাপতি সাইমম সরওয়ার কমল এ আইসিইউ ও এইচডিইউ উদ্বোধন করেন।
কক্সবাজার জেলা প্রশাসক কামাল হোসেনের সভাপতিত্বে জোম কনফারেন্সে উপস্থিত ছিলেন মহেশখালী-কুতুবদিয়ার সংসদ সদস্য আশেক উল্লাহ রফিক, স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ের সচিব হেলালুদ্দিন আহমেদ, স্বাস্থ্য অদিপ্তরের মহাপরিচালক আবুল কালাম আজাদ, চট্টগ্রাম বিভাগীয় স্বাস্থ্য পরিচালক শাহরিয়ার কবির, আরআরআরসি মাহবুবুর রহমান তালুকদার, পুলিশ সুপার এবিএম মাসুদ হোসেন, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি এড. সিরাজুল মোস্তফা, সাধারণ সম্পাদক ও মেয়র মুজিবুর রহমান, সিভিল সার্জন ডা. মাহবুবুর রহমান, ইউএনএইচসিআরের কক্সবাজার অফিসের কর্মকর্তারা, বাংলাদেশ মেডিকেল এসোসিয়েশন (বিএমএ) কক্সবাজার শাখার সভাপতি ডা. পুচনু, সাধারণ সম্পাদক ডা. মাহবুবুর রহমান, সংক্রমণ বিশেষজ্ঞ ডা. শাহজাহান নাজির, কক্সবাজার প্রেসক্লাব সাধারণ সম্পাদক আবু তাহের প্রমুখ। অনুষ্ঠান সঞ্চলনা করেন কক্সবাজার জেলা সদর হাসপাতালে তত্ত্বাবধায়ক ডা. মোহাম্মদ মহিউদ্দিন। তবে কক্সবাজার জেলা সদর হাসপাতালে এই দিনেই রোগী ভর্তি করানো হবে না। আপাতত টায়াল শুরু হবে। ২২ জুন থেকে বিশেষায়িত এই ২ ইউনিটে সংকাটাপন্ন রোগী ভর্তি নেয়া হবে।
হাসপাতালে তত্ত্বাবধায়ক ডা. মোহাম্মদ মহিউদ্দিন প্রতিবেদককে জানান, কক্সবাজার সদর হাসপাতালে করোনা রোগিদের জন্য পুরো একটি ফ্ল্যাট দেয়া হয়েছে। ওইখানে আইসোলেশন ওয়ার্ড হিসেবে নির্ধারণ করা হয়েছে। পুরাতন মেডিকেল কলেজ ভবনের ৫ম তলাতে বসেছে ‘আইসিইউ’ ও ‘এইচডিইউ’ ইউনিট। এই ইউনিট দু’টো চালাতে কক্সবাজার সদর হাসপাতালের সব ধরণের বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক এবং কক্সবাজার মেডিকেল কলেজের সকল বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক সাপোর্ট দেবেন। পুরো ইনস্টুমেন্ট দেখভাল করবেন কক্সবাজার জেলা সদর হাসপাতালের এডমিনিস্ট্রেশন। তবুও ইউএনএইচসিআরের পক্ষ থেকে ওখানে নির্ধারিত ২ জন সিনিয়র কনসালটেন্ট ও ৪ জন জুনিয়র কনসালটেন্ট দেবে। যাদের আইসিইউতে ট্রেনিং আছে এমন ১০ জন ডাক্তারকে মেডিকেল অফিসার হিসেবে নিয়োগ দেয়া হয়েছে। এছাড়াও ট্রেনিং আছে এমন ২৫ জন নার্সকেও নিয়োগ দেয়া হয়েছে। মেডিকেল টেকনিশিয়ান ৩ জন, এম্ব্যুালেন্সের জন্য ড্রাইভার থাকবে ৩ জন, ওয়ার্ডবয় ১০ জন এবং ক্লিনার থাকবে ১০ জন। তাদের সমস্ত ব্যয় বহন করবে ইউএনএইচসিআর।

আরো সংবাদ