কক্সবাজারে লুট করা ২ লাখ ইয়াবাসহ ছাত্রলীগ নেতা গ্রেপ্তার - কক্সবাজার কন্ঠ । জনপ্রিয় অনলাইন নিউজ পোর্টাল

শুক্রবার, ৩ এপ্রিল ২০২০ ২০শে চৈত্র, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

প্রকাশ :  ২০২০-০২-২৫ ১৫:০২:৫৪

কক্সবাজারে লুট করা ২ লাখ ইয়াবাসহ ছাত্রলীগ নেতা গ্রেপ্তার

বিশেষ প্রতিবেদক: কক্সবাজারে ২ লাখ ইয়াবা উদ্ধার করেছে জেলা গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি)। এসময় ফয়সাল আবদুল্লাহ (৩০) নামের ছাত্রলীগ নেতাসহ তিনজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। সোমবার পৃথক দুটি অভিযানে তাদের আটক করা হয় বলে সংশ্লিষ্ট সূত্র নিশ্চিত করেছে। তাদের প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে পুলিশ জানতে পেরেছে ইয়াবা চক্রের শীর্ষ কয়েকজন কারবারি ও ইয়াবা চালান লুটে জড়িতদের নাম। গ্রেপ্তার অন্য দুজন হলেন মো. ফিরোজ (৩২) ও মোস্তাক আহমেদ লালু (৩৬)।

ডিবির পরিদর্শক মানস বড়ুয়া বলেন, কক্সবাজার শহরের মাঝিরঘাট এলাকায় ৮ ফেব্রুয়ারি ইয়াবার একটি বড় চালান প্রবেশ করেছে বলে খবর ছিল। পুলিশ সুপারের নির্দেশনায় ইয়াবার চালান উদ্ধার ও জড়িতদের গ্রেপ্তারে তৎপরতা শুরু হয়। ইয়াবার এই চালানটি লুট হয়ে যায় বলেও তথ্য মেলে। অবশেষে সোমবার দুই লাখ ইয়াবা উদ্ধারের পাশপাশি গ্রেপ্তার করা হয়েছে তিনজনকে। সূত্র জানায়, সোমবার গভীর রাতে কক্সবাজার সদরের খুরুশকুল ইউনিয়নের কুলিয়াপাড়াস্থ মোস্তাক আহম্মেদ লালুর বসত বাড়ি থেকে উদ্ধার হয় এক লাখ ইয়াবা। এ সময় গ্রেপ্তার করা হয় মো. ফিরোজ ও মোস্তাক আহমেদ লালু নামের দুজনকে। পরে তাদের স্বীকারোক্তিতে গ্রেপ্তার করা হয় ছাত্রলীগ নেতা ফয়সাল আবদুল্লাহকে। অভিযানের ধারাবাহিকতায় শহরের পশ্চিম লারপাড়া এলাকার মো. শহিদ ও মো. বোরহানের ঘর থেকে জব্দ করা হয় আরো এক লাখ ইয়াবা।

গ্রেপ্তারকৃতদের মধ্যে ফয়সাল আবদুল্লাহ কক্সবাজার শহরের টেকপাড়ার মৃত আবদুল করিম ওরফে ওসি করিমের পুত্র। তিনি জেলা ছাত্রলীগের সদস্য। তার সহযোগী মো. ফিরোজ খুরুশ্কুল ইউনিয়নের কুলিয়াপাড়ার মৃত ফজল মিয়ার পুত্র। মোস্তাক আহমেদ লালু একই এলাকার মৃত সোলতানের পুত্র। ৮ ফেব্রুয়ারি বিকালে কক্সবাজার শহরের বাঁকখালী নদীর মাঝিরঘাটস্থ আবু ছৈয়দ কোম্পানির জেটিতে ইয়াবার বড় চালান পৌছে ছিল বলে পুলিশ নিশ্চিত হয়েছে। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে আটক তিনজন এ ঘটনার বিস্তারিত তথ্য দিয়েছেন। মাছ ধরা ট্রলারে করে আসা ইয়াবার চালান যখন খালাস হয় তখন স্থানীয় মিজানের নেতৃত্বে একটি বাহিনী তা লুট করে নিয়ে যায়। গ্রেপ্তারকৃতরা এই সিন্ডিকেটের অন্যতম সদস্য। ইয়াবার চালান আটকের ঘটনায় কক্সবাজার সদর মডেল থানায় মামলা হয়েছে। আটক তিনজনসহ ১১ জনকে আসামি করা হয়েছে এ মামলায়।
কক্সবাজারের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন) মো. ইকবাল হোসাইন বলেন, ‘ইয়াবা লুটকারীদের ধরতে পুলিশ ইতিপূর্বে ঘটনাস্থলসহ আশেপাশে কয়েক দফা অভিযান চালিয়েছে। তখন সফলতা আসেনি। সর্বশেষ অভিযান ও অনুসন্ধানে ইয়াবার চালানের সঙ্গে জড়িত ও লুটকারীদের শনাক্ত করা হয়েছে। পলাতক আসামিদের ধরতে অভিযান চলমান রয়েছে।

আরো সংবাদ