কক্সবাজার ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি সম্পর্কে আমার বক্তব্য - কক্সবাজার কন্ঠ

বুধবার, ১৫ জুলাই ২০২০ ৩১ আষাঢ়, ১৪২৭

প্রকাশ :  ২০২০-০৬-০৪ ০৩:৪০:০৬

কক্সবাজার ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি সম্পর্কে আমার বক্তব্য

আমি সালাহউদ্দিন আহমদ সিআইপি কক্সবাজার ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির প্রতিষ্ঠাতা এবং বোর্ড অব ট্রাস্টিজের চেয়ারম্যান। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা আমার মাধ্যমে কক্সবাজারবাসীকে এই বিশ্ববিদ্যালয়টি উপহার দিযেছেন। ২০১৩ সালে উখিয়ার এক জনসভায় প্রকাশ্যে ঘোষণার মাধ্যমে তিনি এই উপহার প্রদান করেন। আমি মুজিবুর রহমানকে বিশ্ববিদ্যালয়ের কাগজপত্র প্রস্তুত করার জন্য সাচিবিক কাজের দায়িত্ব দেই। আমার সরলতার সুযোগে সে জালিয়াতির মাধ্যমে নিজেকে উদ্যোক্তা হিসেবে জাহির করে এবং মন্ত্রণালয় থেকে একটি পত্র হাসিল করে একই সাথে সে আমার অগোচরে তার পরিবারবর্গ নিয়ে যথাযথ কর্তৃপক্ষের নিবন্ধনহীন একটি ট্রাস্টি বোর্ড গঠন করে। অথচ শিক্ষা মন্ত্রণালয়ে তিনশ টাকার নন জুডিশিয়াল স্ট্যাম্পে প্রতিষ্ঠাতা হিসেবে ঘোষণাপত্রে আমার নিজের স্বাক্ষর রয়েছে।

Advertisements

এই জালিয়াতির পর আমি নিজে অনেকটা অবাক হয়ে যাই। আমার মতো পুরো কক্সবাজারবাসীও অবাক হন এবং অনেকেই আমাকে ভুল বুঝতে থাকেন। কিন্তু আমি বিশ্ববিদ্যালয়ের সার্বিক ভালোর জন্য এতোদিন সময় নিয়েছি। এই সময় নেওয়ার কারনে আমাকে দলীয় নেতাকর্মী, বন্ধু বান্ধব, শুভাকাঙ্খী সর্বোপরি কক্সবাজারবাসীর কাছে অনেক প্রশ্নের সম্মুখীন হতে হয়েছে এবং রাজনৈতিকভাবে আমি অনেক ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছি তারপরও বিশ্ববিদ্যালয়ের সম্মানের কথা ভেবে আমি নিরব ছিলাম। আমার এই নিরবতার সুযোগে মুজিবুর রহমান তার পরিবারের লোকজন আত্মীয় স্বজনদের নিয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ে দুর্নীতির মাধ্যমে অর্থ আত্মসাৎ করতে থাকে। বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশন প্রথম আমাকে তার এই দুর্নীতির বিষয়ে অবহিত করে। তারপর মহামান্য রাষ্ট্রপতি কর্তৃক নিযুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের ট্রেজারার মহোদয় লিখিতভাবে তার দুর্নীতি ও অর্থ আত্মসাতের বিষয়ে জানালে আমি তাকে আইনগত পদক্ষেপ গ্রহণের জন্য অনুরোধ করি। তারপর ট্রেজারার মহোদয় কক্সবাজার সদর মডেল থানায় নিয়মিত মামলা রুজু করেন। আমি কক্সবাজারের সম্মানীত নাগরিকবৃন্দ, শিক্ষানুরাগী এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীবৃন্দ, সম্মানিত শিক্ষকমণ্ডলী, কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের উদ্দেশ্যে বলতে চাই আপনারা দয়া করে ধৈর্য ধারণ করুন।

মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জাতির জনকের কন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনার দেয়া উপহার এই বিশ্ববিদ্যালয়টিকে দুর্নীতিবাজদের নিকট হতে পুনরুদ্ধার করে কক্সবাজারের একটি মডেল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে পরিণত করা হবে। যে বিশ্ববিদ্যালয়ের গর্বে পুরো কক্সবাজারবাসী গর্বিত হবে ইনশাআল্লাহ। আমার অগোচরে মুজিবুর রহমান কর্তৃক গঠিত বোর্ড অব ট্রাস্টিজের যে সমস্ত সদস্য দুর্নীতির দায়ে অভিযুক্ত হবে তাদেরকে অচিরেই ট্রাস্টি বোর্ড হতে বহিস্কারপূর্বক পরিচ্ছন্ন, ক্লিন ইমেজ এবং স্বাধীনতার স্বপক্ষ শক্তির ব্যক্তিবর্গ নিয়ে নতুন বোর্ড অব ট্রাস্টিজ গঠন করা হবে। এ বিষয়ে ইতোমধ্যে আমি শিক্ষা মন্ত্রণালয়ে যোগাযোগ করেছি। শিক্ষা মন্ত্রণালয়ও এ বিষয়ে বিস্তারিত খোঁজ খবর নিচ্ছে।
এ ছাড়া বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকমণ্ডলী, কর্মকর্তা কর্মচারীবৃন্দ বিশেষত আমি শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্যে বলতে চাই, ইতোমধ্যে আমাদের বিশ্ববিদ্যালয়ে মহামান্য রাষ্ট্রপতি কর্তৃক মাননীয় ভিসি নিয়োগ দেয়া হয়েছে।

আশা করছি অতিদ্রুত তিনি কর্মস্থলে যোগ দিবেন। তার সাথে বিশ্ববিদ্যালয়ের ট্রেজারার এ বিশ্ববিদ্যালয়ের সম্মানিত শিক্ষক কর্মকর্তা কর্মচারি শিক্ষার্থী সবাই মিলে আমরা এই বিশ্ববিদ্যালয়কে একটি অনুকরণীয় শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে পরিণত করতে সচেষ্ট হবো ইনশাআল্লাহ। আপনারা প্রত্যেকেই আপনাদের নিজ নিজ দায়িত্ব নীতি নৈতিকতার ভেতর দিযে সুচারুভাবে পালন করবেন বলে আমি আশাবাদী।

আরো সংবাদ