জিয়া নিজের ক্ষমতা নিরাপদ করতে জাতীয় ৪ নেতাকে হত্যা করেছিল - কক্সবাজার কন্ঠ । কক্সবাজারের মুখপত্র

বুধবার, ৩ জুন ২০২০ ২০শে জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

প্রকাশ :  ২০১৯-১১-০৩ ২০:২০:৪০

জিয়া নিজের ক্ষমতা নিরাপদ করতে জাতীয় ৪ নেতাকে হত্যা করেছিল

সংবাদ বিজ্ঞপ্তি: ৩রা নভেম্বর জেল হত্যা দিবস উপলক্ষে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ কক্সবাজার জেলা শাখার উদ্যেগে দিনব্যাপী কর্মসূচী পালন করা হয়। কর্মসূচীর মধ্যে ভোর ৬টায় দলীয় কার্যালয়ে কালপতাকা উত্তোলন, দলীয় পতাকা অর্ধ নির্মিত করণ, কালব্যাজ ধারণ, সন্ধ্যা ৬টায় জাতীয় চার নেতার স্মরণে দোয়া ও মিলাদ মাহফিল।
শেষে কক্সবাজার জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি এডভোকেট সিরাজুল মোস্তফার সভাপতিত্বে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।
সভায় বক্তারা বলেন, ৩রা নভেম্বর বাঙালী জাতীর জন্য একটি কলঙ্ক জনক দিন। বাঙালী জাতিকে সম্পূর্ণ মেধাশূন্য করে জিয়াউর রহমান নিজের ক্ষমতাকে নিরাপদ রাখার জন্য সেদিন জেল খানায় এই নির্মমভাবে হত্যা ঘটিয়েছিল। জাতীয় চার নেতা সৈয়দ নজরুল ইসলাম, তাজউদ্দিন আহমদ, এম মনসুর আলী, এ.এই.এম কামরুজ্জামান কে এই হত্যার মধ্যে দিয়ে বাঙালী জাতীর উপর কালিমা লেপন করেছিল। মহান মুক্তিযুদ্ধে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নেতৃত্বে জাতীয় চারনেতা স্বাধীনতা সংগ্রামে যে অবদানের ইতিহাস বাঙালী জাতি কখনো ভুলবে না।
তৎকালীন মেজর জেনারেল জিয়াউর রহমান সেই খুনি চক্র খুনিদের বিভিন্ন দেশের দুতাবাসে কর্মসংস্থান করে দিয়ে পুরস্কৃত করেছিলেন। সে নির্মম ইতিহাস বাঙালী জাতির অজানা নয়।
বক্তারা আরো বলেন-স্বাধীনতা বিরোধী চক্র ৭৫ এর ১৫ আগষ্টে কালরাতে জাতির জনকসহ স্বপরিবারকে হত্যা, জাতীয় চার নেতাকে জেলে হত্যা, আর ২১শে আগষ্টের জননেত্রী শেখ হাসিনা কে হত্যার চেষ্টা একই সূত্রে গাথা বলে মনে করেন। আজ জননেত্রী শেখ হাসিনা বলিষ্ঠ নেতৃত্বে বিশ্ব দরবারে বাংলাদেশ একটি উন্নত রাষ্ট্র হিসেবে পরিচিত পেয়েছে। যতদিন বাঙালী জাতি বেঁচে থাকবে জাতিয় চার নেতার অবদান শ্রদ্ধার সহিত স্মরণ রাখবে। পরিশেষে সকলকে ঐক্যবদ্ধ থেকে জননেত্রী শেখ হাসিনার উন্নয়নের অগ্রযাত্রা অব্যাহত রাখা আহবান জানান ও ৩রা নভেম্বর জাতিয় চার নেতা হত্যাকারীদের বিচারের আওতায় আনার জোরদাবী জানান।
সভায় বক্তব্য রাখেন-জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মুজিবুর রহমান মেয়র, আশেক উল্লাহ রফিক এম.পি, বাবু প্রশান্ত ভূষণ বড়–য়া, অধ্যাপিকা এথিন রাখাইন, মাহবুবুল হক মুকুল, এড. রনজিত দাশ, নাজরিন সরওয়ার কাবেরী, সোহেল আহমদ বাহাদুর, জহিরুল ইসলাম, তাহমিনা চৌধুরী লুনা, সাইফুল ইসলাম চৌধুরী, আসিফ উল মওলা। সভা পরিচালনা করেন বাবু উজ্জ্বল কর। সভায় উপস্থিত ছিলেন-শাহ আলম চৌধুরী রাজা, আব্বাস উদ্দিন চৌধুরী, এড. ফরিদুল আলম, তাপস রক্ষিত, ইউনুছ বাঙ্গালী, ইঞ্জিনিয়ার বদিউল আলম, এম. এ মঞ্জুর, আবু তাহের আজাদ, ড. নুরুল আবছার, জি.এম. কাসেম, এড. জিয়া উদ্দিন, আয়েশা সিরাজসহ পৌর আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনের নেতৃবৃন্দরা। মোনাজাত ও দোয়া মাহফিল পরিচালনা করেন নুরুল আলম সরকার।

আরো সংবাদ