নিউট্রি-চ্যাম্পস প্রতিযোগিতা পর্ব এবার অনুষ্ঠিত হল কক্সবাজারে - Coxsbazarkontho.com | Newspaper

বুধবার, ১৬ অক্টোবর ২০১৯ ১লা কার্তিক, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

বুধবার

বিষয় :

প্রকাশ :  ২০১৯-০৯-২১ ১২:৫৫:০৪

নিউট্রি-চ্যাম্পস প্রতিযোগিতা পর্ব এবার অনুষ্ঠিত হল কক্সবাজারে

জসিম সিদ্দিকী, কক্সবাজার : ফিড দ্য ফিউচার ও ইউএসএআইডি’র বিভিন্ন প্রজেক্ট এর অধীনে রাঁধি ও খাই, পুষ্টি ভুলি নাই! এ শ্লেগানে “নিউট্রি-চ্যাম্পস” প্রতিযোগিতার আঞ্চলিক পর্ব এবার অনুষ্ঠিত হল কক্সবাজারে। ফিড দ্য ফিউচার ও ইউএসএআইডি’-উজ্জীবন প্রজেক্ট এর পক্ষ্যে এই রান্নার প্রতিযোগিতার আয়োজন করেছে ইউএসআইডি’র বিভিন্ন প্রকল্প,জনস হপকিন্স সেন্টার ফর, কমিউনিকেশন প্রোগ্রামস, ওয়ার্ল্ড ফিশ,এসিডিআই-ভোকা (এলপিআইএন ও আরডিসি), এবট অ্যাসোসিয়েটস এবং বিভিন্ন বেসরকারি বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠান। যা আগামী কয়েক মাস ধরে দেশের বিভিন্ন বিভাগীয় শহরে অনুষ্ঠিত হবে।
প্রতিযোগিতাটির মূল উদ্দেশ্য হচ্ছে তরুণ-তরুণীদের রান্নায় অংশগ্রহণের মাধ্যমে পুষ্টিকর ও সুস্বাদু খাবার তৈরিতে উৎসাহ প্রদান। এর ফলে দৈনন্দিন খাদ্যভাসে সঠিক পুষ্টি ও স্বাস্থ্যকর খাবারের উপস্থিতি নিশ্চিত করা যাবে বলে আশা করা যাচ্ছে।
প্রতিযোগিতায় বিভিন্ন উচ্চশিক্ষা প্রতিষ্ঠান থেকে রান্নায় আগ্রহী ছেলে ও মেয়ে উভয়কে বাছাই করা হয়। প্রতিযোগীরা দুইজনের এক একটি দল গঠন করে অংশ নিয়ে থাকে। অনুষ্ঠানটির উপস্থাপনা করেন বিশিষ্ট রন্ধন শিল্পী ও বিশেষজ্ঞ নাহিদ ওসমান এবং টেন মিনিট স্কুলের প্রতিষ্ঠাতা ও সেলিব্রিটি ইয়ুথ আইকন আয়মান সাদিক।
প্রতিযোগীরা রান্নার উপাদান এবং পদ্ধতির সাথে পরিচিত হওয়ার পরে একটি রান্নার প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করে, যেখানে তাদের একটি খোলা প্যান্ট্রিতে একই উপাদানের সেট দেয়া হয়। নির্দিষ্ট সময় সীমার মধ্যে প্রতিযোগীদের একটি পুষ্টিকর,উদ্ভাবনী কিন্তু সুস্বাদু খাবার রান্না করার জন্য চ্যালেঞ্জ নিতে হয়,যেখানে রহস্য বাক্সের উপাদানগুলি দিয়ে পরিপূর্ণ একটি মিল তৈরি ও পরিবেশন করা হয়।
প্রতিযোগিতার পরে বিচারকরা খাবারের পুষ্টিগুণ, স্বাদ, পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতা ও স্বাস্থ্য সম্মত কীনা তা বিচার করেন এবং শীর্ষ দুইটি দলকে নির্বাচন করে থাকে। আঞ্চলিক পর্যায়ের বিজয়ী প্রথম দুটি করে দল ঢাকায় অনুষ্ঠিত গ্র্যান্ড ফিনালেতে অংশগ্রহণ করার যোগ্যতা অর্জন করবে।
ইউএসএআইডি’র বিভিন্ন প্রকল্পের অধীনে একটি উদ্যোগ “নিউট্রি-চ্যাম্পস” প্রতিযোগিতা। এই প্রতিযোগিতাটি তরুণ-তরুণীদের স্বাস্থ্যকর ও বৈচিত্র্যপূর্ণ খাবার গ্রহণ, বিশেষ করে গবাদি, কৃষজ, পুষ্টিকর ও স্বাস্থ্যকর খাবার গ্রহণে দীর্ঘমেয়াদি প্রভাব রাখবে বলে আশা করা যায়। এছাড়া পর্যায়ক্রমে বিভাগীয় পর্যায়ে এবং সব শেষে গ্র্যান্ড ফিনালেত কার্যকরী ভূমিকা পালন করবে।
ইউএসএআইডি-এর মাধ্যমে আমেরিকার সরকার ১৯৭১ সাল থেকে এ যাবৎকাল পর্যন্ত উন্নয়নখাতে বাংলাদেশকে ৭ বিলিয়ন ডলারেরও বেশি অর্থসেবা প্রদান করেছে। ২০১৮ সালে ইউএসএআইডি-এর বাংলাদেশকে প্রদত্ত অর্থের পরিমাণ ২১৯ মিলিয়ন ডলারেরও অধিক। ইউএসএআইডি এমন সব প্রকল্পে বাংলাদেশকে অর্থসেবা দিচ্ছে যার মাধ্যমে মানুষের জীবনের উন্নতি সাধনের নিমিত্তে খাদ্য নিরাপত্তা ও অর্থনৈতিক খাতের সুযোগসমূহ বিস্তৃত হবে, স্বাস্থ্য ও শিক্ষার উন্নতি ঘটবে, গণতান্ত্রিক প্রতিষ্ঠান ও গণতন্ত্রের অনুশীলন বাড়বে, পরিবেশ রক্ষার জন্য কাজ হবে এবং জলবায়ু পরিবর্তন স্বাভাবিক অবস্থায় ফিরে আসার সম্ভাবনা বৃদ্ধি পাবে।

আরো সংবাদ

আর্কাইভ ক্যালেন্ডার
অক্টোবর ২০১৯
সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
« সেপ্টেম্বর    
 
১০১১১২১৩
১৪১৫১৬১৭১৮১৯২০
২১২২২৩২৪২৫২৬২৭
২৮২৯৩০৩১