পঙ্গপালের হানায় দিশেহারা ভারত - কক্সবাজার কন্ঠ

বুধবার, ১৫ জুলাই ২০২০ ৩১শে আষাঢ়, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

বুধবার

প্রকাশ :  ২০২০-০৫-২৮ ০০:৪৫:৩২

পঙ্গপালের হানায় দিশেহারা ভারত

নিউজ ডেস্ক :  করোনা মহামারির মাঝে ভারতে ঢুকে পড়া পঙ্গপালের ঝাঁক রাজস্থান, মধ্যপ্রদেশ, গুজরাট ও হরিয়ানার পর এবার আরও তিনটি প্রদেশে ছড়িয়ে পড়েছে। কোটি কোটি পঙ্গপালের এসব ঝাঁক এবার মহরাষ্ট্র, উত্তরপ্রদেশ এবং পাঞ্জাবে শত শত একর জমির আবাদি ফসল সাবাড় করছে। গত তিন দশকের মধ্যে পঙ্গপালের সবচেয়ে ভয়াবহ এই হানা মোকাবিলায় ব্যাপক তৎপরতা শুরু করেছে রাজ্য সরকারগুলো।

দেশটির কেন্দ্রীয় কৃষি মন্ত্রণালয় বলছে, বুধবার পর্যন্ত রাজস্থানের ২০টি জেলা, মধ্যপ্রেদেশের ৯টি, গুজরাটের দুটি এবং পাঞ্জাব ও উত্তরপ্রদেশের একটি করে জেলায় ৪৭ হাজার হেক্টরের বেশি জমিতে ছড়িয়ে পড়েছে পঙ্গপাল। পঙ্গপাল নিধনে এসব রাজ্যের অন্তত ৩০৩টি স্থানে কীটনাশক ছিটানোর অভিযান শুরু হয়েছে।

পঙ্গপাল নিধন অভিযান সমন্বয়ের জন্য কেন্দ্রীয় সরকার ১১টি কন্ট্রোল রুম চালু করেছে। সেখান থেকে বিশেষ স্প্রে মেশিন ব্যবহার করে কীটনাশক ছিটানোর কাজ চলছে। দেশটির কেন্দ্রীয় কৃষিমন্ত্রী নরেন্দ্র সিং তোমার এই পরিস্থিতি অত্যন্ত নিবিড়ভাবে পর্যবেক্ষণ করছেন বলে জানিয়েছেন। রাজ্যগুলোর কৃষিমন্ত্রী এবং কীটনাশক কোম্পানিগুলোর সঙ্গে ইতোমধ্যে দফায় দফায় বৈঠক করেছেন তিনি।

ড্রোন থেকে কিটনাশক ছিটিয়ে পঙ্গপালের ধ্বংসের জন্য রাজ্য সরকারগুলো টেন্ডার আহ্বান করেছে। শাকসবজি এবং অন্যান্য শস্য ক্ষেতের জন্য হুমকি হিসেবে আবির্ভূত হওয়া পঙ্গপাল রবিশস্যের ওপর এখনও তেমন কোনও প্রভাব ফেলতে পারেনি বলে দেশটির সরকারি কর্মকর্তারা জানিয়েছেন। তারা বলেছেন, ফসল বাঁচানোর জন্য সরকার পঙ্গপাল ধ্বংসের তৎপরতা ব্যাপকহারে বৃদ্ধি করেছে।

Advertisements

মধ্যপ্রদেশে প্রথমবারের মতো পঙ্গপালের হানা শুরু হলেও পরবর্তীতে তা উত্তরপ্রদেশের ঝাঁসি জেলায় পৌঁছেছে বুধবার। রাজ্যের সরকারি এক কর্মকর্তা বলেছেন, এই অঞ্চলের অন্যান্য জেলাগুলোতে পঙ্গপাল সতর্কতা জারি করা হয়েছে।

এক রাজ্য থেকে মুহূর্তের মধ্যে এসব পঙ্গপাল অন্য রাজ্যে ছড়িয়ে পড়ায় দেশটির সরকার চিন্তায় পড়েছে। স্থানীয় কর্মকর্তারা বলেছেন, দিনে গড়ে ৫০ থেকে ১০০ কিলোমিটার পাড়ি দিচ্ছে পঙ্গপালের ঝাঁক। আগামী কয়েকদিনের মধ্যে তা রাজধানী দিল্লিতেও পৌঁছাতে পারে বলে আশঙ্কা প্রকাশ করেছেন তারা। ভারতে পঙ্গপালের ঝাঁক প্রবেশ করেছে প্রতিবেশি পাকিস্তান থেকে; যেখানে এখনও পঙ্গপালের ফসল সাবারের তাণ্ডব চলছে।

জাতিসংঘের কৃষিবিষয়ক সংস্থা এফএও বলেছে, একটি পঙ্গপাল দিনে দুই গ্রাম ফসল খেতে পারে। এক বর্গকিলোমিটার দীর্ঘ একটি ঝাঁকে ৪ থেকে ৮ কোটি পঙ্গপাল থাকে। দিনে ১৩০ থেকে ১৫০ কিলোমিটার এলাকায় অন্তত ৩৫ হাজার মানুষের খাবার ধ্বংস করতে পারে পঙ্গপাল। সূত্র – জাগো নিউজ।

আরো সংবাদ