পিএমখালীতে মধ্যযুগীয় বর্বরতায় নির্যাতনের অভিযোগ ভিডিওসহ - কক্সবাজার কন্ঠ

শুক্রবার, ২৩ অক্টোবর ২০২০ ৭ই কার্তিক, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

প্রকাশ :  ২০২০-০৯-২৭ ১৯:৫৬:২১

পিএমখালীতে মধ্যযুগীয় বর্বরতায় নির্যাতনের অভিযোগ ভিডিওসহ

নিজস্ব প্রতিবেদক : কক্সবাজার সদরের পিএমখালীতে গৃহবধু ও তার ছেলেকে মধ্যযুগীয় বর্বরতায় নির্যাতনের অভিযোগ উঠেছে। নির্যাতনের শিকার গৃহবধু রাহেলা বেগম (৪০)কে কক্সবাজার জেলা সদর হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে। সে পিএমখালীর তুতুকখালী গ্রামের বদিউল আলমের স্ত্রী।
নির্যাতিত গহবধু রাহেলা বেগম জানান, তার ছোট ছেলে আলম খান ডেহেরিয়াঘোনা এলাকায় মুদির দোকান করেন। তার এই দোকানটি করতে গিয়ে নানাভাবে বাধা দিয়ে আসছিল স্থানীয় নাজিম উদ্দিন বাবুল নামের এক প্রভাবশালী। এমনকি চাঁদা না দিলে দোকান করতে দেবেনা বলে হুমকি দিয়ে আসছিল বার বার। এর ধারাবাহিকতায় ২৬ সেপ্টেম্বর রাত ১১টার দিকে ছোট ছেলে মুদির দোকানদার আলম খানকে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করেন এবং মারতে উদ্যত হন। খবর পেয়ে গৃহবধু তার আরেক ছেলে বোরহান উদ্দিনকে নিয়ে উক্ত স্থানে গেলে অভিযুক্ত একই এলাকার নাজিম উদ্দিন বাবুল, সঙ্গীয় বেলাল উদ্দিন, মাসুদ রানা, নিহাল ও ডুনারসহ আরো ৪/৫জন তাদের উপর হামলা করে। এক পর্যায়ে গৃহবধুর চুলের মুঠি ধরে টানাহেঁচড়া করে পরনের শাড়ি ব্লাউজ ছিঁড়ে শালিনতা হানি করে।

এসময় গৃহবধু ও তার ছেলে বোরহান উদ্দিনকে কিল,লাথি,ঘুষি মেরে পিটিয়ে জখম করে। পরবর্তীতে পাশর্বর্তীরা তাদের উদ্ধার করে এবং আহত গৃহবধু বর্তমানে কক্সবাজার জেলা সদর হাসপাতালে ভর্তি করেন। তার ডান কানসহ শরীরের বিভিন্ন অংশে জখম হয়েছে। গৃহবধু আরো অভিযোগ করেন, নাজিম উদ্দিন বাবুলসহ উল্লেখিত সহযোগিরা একই দিন তার বসতঘরে গিয়েও হামলা-ভাংচুর চালিয়েছে। তাদের মা-ছেলে দু’জনকে দ্বিতীয় দফায় মারধর করে। বর্তমানে ছেলেসহ তার পরিবার উল্লেখিত ব্যক্তিদের আক্রোশের মুখে এলাকাছাড়া হয়েছে।
এদিকে আক্রান্ত পক্ষের দাবী, উল্লেখিত নাজিম উদ্দিন বাবুলসহ অভিযুক্তরা এলাকার খুবই প্রভাবশালী। তারা এলাকায় পাহাড় কর্তন, জমি দখল, নিরীহ লোকজনকে মারধরসহ নানা অপকর্ম করে বেড়াচ্ছে। তাদের ভয়ে কেউ মুখ খুলতে সাহস করেনা। আক্রান্ত পরিবার তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে সংশ্লিষ্ট পুলিশ প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেন।

আরো সংবাদ