বদরের প্রেক্ষাপটঃ হক ও বাতিলের ফয়সালা - কক্সবাজার কন্ঠ । কক্সবাজারের মুখপত্র

শনিবার, ৬ জুন ২০২০ ২৩শে জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

শনিবার

প্রকাশ :  ২০২০-০৫-০৮ ২১:৩০:০১

বদরের প্রেক্ষাপটঃ হক ও বাতিলের ফয়সালা

জনপ্রিয় অনলাইন নিউজ পোর্টাল কক্সবাজার কন্ঠের সৌজন্যে মাহে রমজানের ধারাবাহিক “রমজান কন্ঠ” কলাম থেকে-

ধারাবাহিক পর্ব-১৫
প্রসঙ্গঃ হক ও বাতিলের ফয়সালা:
বদরের জিহাদ ছিল হক্ব ও বাতিলের মধ্যে চূড়ান্ত ফয়সালাকালী যুদ্ধ। নবী করীম [ﷺ]-এঁর অসংখ্য মো’জেযা এতে প্রকাশ পায়। এই যুদ্ধ সংগঠিত হয় বদরের ময়দানে ১৭ই রমযান দ্বিতীয় হিজরীতে। বদর মদীনা শরীফ হতে সোজাপথে ৮০ মাইল পশ্চিম দক্ষিণে অবস্থিত। এক ব্যক্তির নাম ছিল বদর। সে একটি কূপ খনন করেছিল। তার নামানুসারে ঐ এলাকা ও কূপের নাম রাখা হয় বদর। ঘটনাক্রমে পরিকল্পনা ছাড়াই এই যুদ্ধ ঘটে যায়। ঘটনাটি নিম্নরূপঃ

নবী করীম [ﷺ]-এঁর হিজরত করে মদীনায় গমন এবং তথায় ইসলামের প্রসার দেখে মক্কার কোরাইশগণ জ্বলে পুড়ে মরে যাচ্ছিল। কিভাবে ইসলামের প্রসার রোধ করা যায় এবং কিভাবে মুসলমানদের শেষ করা যায়- এই ভাবনা তাদের পেয়ে বসে। তারা পরামর্শ করে স্থির করলো, যুদ্ধই ইসলামকে খতম করার একমাত্র উপায়। এই পরিকল্পনা বাস্তবায়নের লক্ষ্যে তারা প্রথমে অস্ত্র সংগ্রহ করার দিকে মনোযোগ দিল। আবু সুফিয়ানের নেতৃত্বে একটি বাণিজ্য কাফেলা সিরিয়ায় গমন করলো। মক্কার কোরাইশরা সোনা-চান্দি, গহনাপত্র ও অন্যান্য মাল-সামানা সিরিয়ায় প্রেরণ করলো। বিক্রয়লবদ্ধ অর্থ দ্বারা যুদ্ধাস্ত্র খরিদ করে আবু সুফিয়ানের কাফেলা মক্কার দিকে রওয়ানা দিলো। উক্ত কাফেলার নিরাপত্তার জন্য ৪০ জন অশ্বারোহী সাথে রাখলো।

তারা মদীনার কাছাকাছি পৌঁছলে হযরত জিব্রাইল عَلَیۡہِ السَّلَام নবী করীম [ﷺ]-কে উক্ত কাফেলার গতিরোধ করার উদ্দেশ্যে বের হতে আরয করলেন। নবী করীম [ﷺ] মোহাজির ও আনসার মিলিয়ে মোট ৩১৩ জনের একটি দল নিয়ে আবু সুফিয়ানের অস্ত্র কাফেলার গতিরোধ করার উদ্দেশ্যে রওয়ানা দিলেন। আবু সুফিয়ান গুপ্তচর মারফত খবর পেয়ে লোহিত সাগরের উপকূল ধরে অন্য পথে দ্রুতগতিতে বিপজ্জনক স্থান অতিক্রম করে চলে গেলো। সে পূর্বেই গুপ্তচর মারফত মক্কায় আবু জাহলকে নবী করীম [ﷺ]-এঁর আগমনের খবর পৌঁছিয়ে দিয়েছিল। নবী করীম [ﷺ] রাওহা নামক স্থানে পৌঁছে খবর পেলেন, আবু সুফিয়ানের অস্ত্র কাফেলা নিরাপদে উপকূল ধরে চলে গেছে। এ সময়ে আল্লাহ্ তায়ালা নবী করীম [ﷺ]-কে মক্কা থেকে আগত আবু জাহল বাহিনীর কথা জানিয়ে দিলেন এবং মোকাবেলার নির্দেশ দিলেন। বিজয়ের শুভ সংবাদও প্রদান করলেন। আল্লাহ পাক জিব্রাইল মারফত একথাও বলে পাঠালেন যে, “দু’টি দলের মধ্যে একটিতে তোমাদের বিজয় হবে।” (সুরা আনফাল, আয়াত-৭)। (প্রথম দল আবু সুফিয়ান এবং দ্বিতীয় দল আবু জাহল।)
বিঃদ্রঃ বদরের প্রেক্ষাপট সম্পর্কে আরো আলোচনা পরবর্তী পর্ব সমুহে আলোচনা করব ইন-শা-আল্লাহ।

লেখক:
মাওলানা হেলাল আহমদ রিজভী
কামিল (এম,এ) ফার্স্ট ক্লাস
খতিব, রহমত নগর জামে মসজিদ, উত্তর সোনারপাড়া ঝাউবাগান, উখিয়া, কক্সবাজার।
মোবাইল- ০১৮২৪৮৭৮৭২১
ইমেইল-helalrezvi87@gmail.com

আরো সংবাদ