মহেশখালীতে জন্ম নিবন্ধন বিড়ম্বনায় নতুন ভোটাররা - কক্সবাজার কন্ঠ

বৃহস্পতিবার, ২৯ অক্টোবর ২০২০ ১৩ই কার্তিক, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

বৃহস্পতিবার

বিষয় :

প্রকাশ :  ২০১৯-০৬-২০ ১৫:৫৭:৪২

মহেশখালীতে জন্ম নিবন্ধন বিড়ম্বনায় নতুন ভোটাররা


মো. কাইছার হামিদ, মহেশখালী: জন্ম নিবন্ধন বিড়ম্বনায় পড়েছেন কক্সবাজারের নতুন ভোটাররা। প্রায় দু’বছর ধরে এ জেলার ৮টি উপজেলার ৭১টি ইউনিয়ন ও ৪টি পৌরসভায় জন্ম নিবন্ধন কার্যক্রম বন্ধ রয়েছে। মিয়ানমার থেকে এদেশের উগ্রবৌদ্ধ ও সামরিক জান্তর-নির্যাতনে সে দেশের বাসিন্দা রোহিঙ্গাদের সহায় সম্পদ ফেলে দেশ ছাড়তে বাধ্য করেছে । মানবিক কারনে সরকার প্রায় ১২ লাখ রোহিঙ্গা নর-নারী ও শিশুদের এ কক্সবাজারের উখিয়া ও টেকনাফ উপজেলায় আশ্রয় দিয়েছে। সে সময় পালিয়ে আসা ভিনদেশী নাগরিকেরা এদেশের নাগরিক হিসেবে জন্ম নিবন্ধন করার আশঙ্কায় কক্সবাজার, চট্টগ্রাম ও তিন পার্বত্য জেলার জন্ম নিবন্ধন কার্যক্রম বন্ধ করে দেয়। এদিকে প্রায় দু’বছর অতিবাহিত হওয়ার পরও জন্ম নিবন্ধন কার্যক্রম আর চালু হয়নি। ফলে এ জেলার ৮ উপজেলার স্থানীয় বাসিন্দারা প্রতিদিন কোন না কোন কাজে ভোগান্তির শিকার হচ্ছে। ইতোমধ্যে ভোটার তালিকা হালনাগাদ ২০১৯ এর কাজ শুরু হওয়ায় নতুন ভোটার হতে তরুণ-তরুণীরা জন্ম নিবন্ধন সনদ নিয়ে বিপাকে পড়েছে। অন্যদিকে অনেকের জন্ম নিবন্ধন হলেও তা অনলাইনে পাওয়া যাচ্ছে না। ফলে অনেক তরুণ-তরুণী এবার ভোটার হতে পারবেনা বলে শংকা প্রকাশ করছেন । অপর দিকে এ জন্ম নিবন্ধন অনলাইন বন্ধ থাকায় শিক্ষার্থীরা ভোগান্তি স্বীকার হচ্ছে। অধিকাংশ জন্ম নিবন্ধনে বেশীর ভাগ বয়সের ক্ষেত্রে দেখা যায় তাদের স্কুল সার্টিফিকেটের সাথে গড়মিল। কিন্তু অনলাইন বন্ধ থাকায় তাদের সার্টিফিকেট অনুযায়ী বয়স সংশোধনও করতে পারছে না। ভোটার হতে ইচ্ছুক মহেশখালী উপজেলার কালারমারছড়া ইউনিয়নের সাজ্জাদ হোসেন বলেন, কক্সবাজার রোহিঙ্গাদের আশ্রয় দেয়ার কারনে যদি ২ বছর জন্ম নিবন্ধন বন্ধ থাকে, রোহিঙ্গারা যত দিন এদেশে থাকবে ততদিন মহেশখালী তথা জেলাবাসীর জন্ম নিবন্ধন বন্ধ থাকবে? এমন প্রশ্ন। এদিকে জন্ম নিবন্ধন বন্ধ রয়েছে ঠিকই কিন্তু রোহিঙ্গারা প্রতিদিন ক্যাম্প থেকে পালিয়ে দেশের বিভিন্ন জায়গায় ছড়িয়ে পড়েছে । বর্তমানে রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠীর নানা অপকর্মে স্থানীয় লোকজন অতিষ্ঠ ও অসহায় হয়ে পড়েছে। সচেতন মহলের অভিমত মিয়ানমারের আরাকান থেকে বিতাড়িত রোহিঙ্গারা পুনরায় নিজ জন্মস্থানে ফিরবে তার নিশ্চয়তা বা কে দেবে?। অন্যদিকে সরকার রোহিঙ্গাদের আশ্রয় দিলেও এখন মানবতার খাতিরে তাড়িয়ে দিতে পারছেনা। না পারছে ঘিলতে, না পারছে ফেলতে। তাদের কে নিজ দেশে ফেরাতে সরকার কূটনৈতিক প্রচেষ্টাও অব্যাহত রেখেছে ।

আরো সংবাদ