মহেশখালীতে শোকরিয়া সভা ও মেজবান ১৮ জানুয়ারি - Coxsbazarkontho.com

বুধবার, ২৯ জানুয়ারী ২০২০ ১৫ই মাঘ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

প্রকাশ :  ২০২০-০১-১৬ ১১:২৬:৫৯

মহেশখালীতে শোকরিয়া সভা ও মেজবান ১৮ জানুয়ারি

কাইছার হামিদ, মহেশখালী:  কক্সবাজার জেলার উপকূলীয় উপজেলা মহেশখালীর কালারমারছড়া ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান মীর কাসিম চৌধুরী ষড়যন্ত্র কারিদের সাজানো নাটক থেকে প্রাণে রক্ষা পাওয়ায় স্থানীয় আশরাফিয়া জামিয়া ঝাপুয়া মাদ্রাসা ও এলাকার সুশীল সমাজের উদ্যাগে আগামীকাল ১৮ জানুয়ারী শনিবার সকালে স্মরণকালে বৃহত্তম বিশাল এক শোকরানা সভা ঝাপুয়া মাদ্রাসার মাঠে অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে।

Advertisements

অনুষ্ঠানকে সফল করতে সব প্রস্তুতি সম্পন্ন করা হয়েছে। ওই দিন কয়েকটি মাদ্রাসার এতিম শিক্ষার্থী ও মুরব্বিসহ বিভিন্ন পেশার প্রায় ২০ হাজার নারী-পুরুষের খানার ব্যবস্থা করেছেন আয়োজক কমিটি। বিষয়টি নিশ্চিত করে আয়োজক কমিটির প্রধান উদ্যোক্তা চট্টগ্রাম দক্ষিণ প্রান্তের স্বনামধন্য শিক্ষা প্রতিষ্ঠান আশরাফিয়া ঝাপুয়া মাদ্রাসার সুপার মৌলভী রিদোয়ান। তিনি  বলেন, সাবেক চেয়ারম্যান মীর কাসেম চৌধুরী ও তার পরিবারেরর সদস্যরা উক্ত মাদ্রাসা প্রতিষ্ঠা লগ্ন থেকে দেখা শোনা দায়িত্ব রয়েছেন। ফলে ঝঁরে পড়া বহু শিক্ষার্থী তাঁদের পরিবারের অনুদানে ধর্মীয় শিক্ষা লাভ করে দেশে-বিদেশে চাকুরিরত রয়েছেন।

Advertisements

এছাড়া প্রধানমন্ত্রী ২০৪১- ভিশন কে সফল করার লক্ষে এ দ্বীনি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান থেকে শিক্ষা লাভ করে দেশের বিভিন্ন স্কুল,কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যায়নরত রয়েছে। তাই তাঁদের পরিবারের অবদানকে ঝিইয়ে রাখতে আমরা এ শোকরিয়া সভার আয়োজন করছি। আয়োজক কমিটির অন্যতম সদস্য আওয়ামী লীগ নেতা মো. ইসহাক ও ব্যবসায়ী বদর উদ্দিন বলেন, সাবেক চেয়ারম্যান মীর কাসেম চৌধুরী ও তার পরিবারের সদস্যদের কারণে কালারমারছড়া এলাকার বৃহত্তর ঝাপুয়ায় লবণ, চিংড়ি, পানসহ বিভিন্ন চাষী ও ব্যবসায়ীরা শান্তিপূর্ণভাবে ব্যবসা করে দেশে-বিদেশে উৎপাদিত পণ্য রপ্তানি করে সরকারবে লাখ-লাখ টাকা রাজত্ব আদায়ে বিশাল ভূমিকা রাখছেন।

সাফ কথা, তাঁদের পরিবার ওই এলাকার শান্তি প্রতীক বললে চলে। চেয়ারম্যান মীর কাসিম চৌধুরীর ছোট ভাই বাবর চৌধুরী বলেন, আমরা এলাকাকে শান্তি রাখার জন্য পরিবারের পক্ষ থেকে যা -যা করার দরকার তা করে যাচ্ছি এলাকাবাসী। সুতরাং এরই অবদান হিসেবে এলাকাবাসী আমার বড় ভাইয়ের জীবনের সফলতা ও দীর্ঘায়ু কামনা করে প্রায় কোটি টাকা ব্যয়ে এ শোকরিয়া মাহফিলের আয়োজন করেছে। এই শোকরিয়া মাহফিলই প্রমাণ করে আমার ভাই বড় ভাইয়ের জীবন স্বার্থক ও সফল। এছাড়া এলাকাবাসির এ সহযোগিতা ও উদ্যাগকে আমাদের পরিবারের সকলের হ্নদয়ের মাঝে আমৃত্যু হয়ে থাকবে।

আরো সংবাদ