শহরের উত্তর রুমালিয়ার ছড়ার ছরাটিও দখলে নেমেছে ভূমিদস্যূরা - কক্সবাজার কন্ঠ

বুধবার, ৫ আগস্ট ২০২০ ২১শে শ্রাবণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

প্রকাশ :  ২০১৯-১০-০৪ ০১:৩১:৪৪

শহরের উত্তর রুমালিয়ার ছড়ার ছরাটিও দখলে নেমেছে ভূমিদস্যূরা

জসিম সিদ্দিকী, কক্সবাজার:

Advertisements
অবশেষে কক্সবাজারের শহরের ঐতিহ্যবাহী উত্তর রুমালিয়ারছড়ার ছরাটি বেদখল হয়ে যাচ্ছে। শহরের উত্তর রুমালিয়ারছরাস্থ ছিদ্দিক হাজীর বাড়ীর পিছনে এ দখল কার্যক্রম চলছে। ৪ অক্টোবর দুপুরে ঘটনাস্থলে পরিদর্শন করে এই দৃশ্য দেখা যায়। স্থানীয়দের দাবী, সংশ্লিষ্ট প্রশাসনের নজরধারির অভাবে প্রভাবশালী ভূমিদস্যূরা ওই ছরাটিতে মাটি ভরাট করে জমি দখলে নিয়ে ইতোমধ্যে বাউন্ডারী ওয়াল দিয়ে পৌরসভার কাজ বন্ধ করে দিয়েছে। পাশাপশি প্রতিনিয়ত রোহিঙ্গা শ্রমিক দিয়ে মাটি ভরাট করে ঘেরা-বেড়া দিয়ে ওই ছরাটি দখল করে আসছে জনৈক সাইফুল আর রফিক সিন্ডিকেট। এ বিষয়টি জানার জন্য কক্সবাজার পৌরসভার প্যানেল মেয়র শাহেনা আক্তার পাখির সাথে কথা হলে তিনি জানান, বিষয়টি মেয়র মেেহাদয়কে দৃষ্টি আকর্ষণ করা হয়েছে। তিনি এব্যাপারে পৌর কর্তৃপক্ষ যথাযথ আইনগত ব্যবস্থা নিবেন বলে জানান। জানাগেছে, কক্সবাজার পৌরসভার অন্যতম জলাধার উত্তর রুমালিয়ারছড়ার উপর দিয়ে প্রবাহিত পৌরসভা কর্তৃক চলমান ছরাটি সংরক্ষণ বাঁধের কাজ বন্ধ করে দিয়েছে।

তারপর ভূমিদস্যূরা ছরার দুই-তৃতীয়াংশ জমি দখল করে নিয়ে বাউন্ডারী ওয়াল তৈরী করছে। ভুক্তভোগিরা জানান, কক্সবাজার পৌরসভার জলাধার উত্তর রুমালিয়ারছড়ার উপর দিয়ে পৌরসভা কর্তৃক চলমান ছরাটি সংরক্ষণ বাঁধের কাজ বন্ধ করে দিয়েছে। তারপর ছরার দুই-তৃতীয়াংশ জমি দখল করে নিয়ে তারা বাউন্ডারী ওয়াল তৈরী করছে। ইতোমধ্যে প্রশাসনের কিছু কর্মকর্তা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করলেও ভূমিদস্যূরা এখনো দখল কার্যক্রম বন্ধ করে নেই। এব্যাপারে তারা প্রশাসনের জরুরী হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন। এদিকে স্থানীয় ওয়ার্ড কাউন্সিলর মোহাম্মদ শাহাব উদ্দিন জানান, বিষয়টি নিয়ে দখলবাজদের সাথে কথা হয়েছে। তবুও তারা কৌশলে দখলবাজি চালিয়ে আসছে। এনিয়ে কক্সবাজার পৌর প্রশাসন দ্রুত ছরাটি দখলমুক্তসহ প্রয়োজনীয় আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন।

Advertisements
এনিয়ে স্থানীয়দের মাঝে মিশ্রপ্রতিক্রিয়া দেখা দিয়েছে। অনেকেই ইতোমধ্যে এই দখল কার্যক্রম নিয়ে ভূমিদস্যূদের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ শুরু করে দিয়েছেন। তাই বড় ধরনের কোনো সংর্ঘষ না হওয়ার আগেই যদি পৌর প্রশাসন ভূমিদস্যূদের বিরুদ্ধে দ্রুত ব্যবস্থা গ্রহণ করেন তাহলে উভয়ের জন্য মঙ্গলজনক হবে বলে মনে করছেন কক্সবাজারের সচেতন মহল।

আরো সংবাদ