সেনা কর্মকর্তা নিহতের ঘটনা অনাকাঙ্খিত-সেনাপ্রধান - কক্সবাজার কন্ঠ

শনিবার, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২০ ১১ই আশ্বিন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

প্রকাশ :  ২০২০-০৮-০৫ ১০:১৬:৩৭

সেনা কর্মকর্তা নিহতের ঘটনা অনাকাঙ্খিত-সেনাপ্রধান

জসিম সিদ্দিকী, কক্সবাজার : অবসরপ্রাপ্ত সেনা কর্মকর্তা সিনহা মোহাম্মদ রাশেদ খান হত্যাকান্ডকে বিচ্ছিন্ন ঘটনা হিসেবে দেখতে চান সেনাবাহিনী। এ ঘটনায় দুই বাহিনীর মধ্যে কোনো সম্পর্কের অবনতি ঘটবেনা। তদন্ত কমিটির রিপোর্টকে শ্রদ্ধা জানাবে সেনাবাহিনী। সেনাবাহিনী ও পুলিশ সবসময় কাঁধে কাঁধ রেখে কাজ করেছে। সিনহা নিহতের ঘটনায় দায় ব্যক্তির, কোনও বাহিনীর নয় বলে জানিয়েছেন, সেনাবাহিনীর প্রধান জেনারেল আজিজ আহমেদ। ৫ আগস্ট দুপুরে কক্সবাজার এক সংবাদ সম্মেলনে সাংবাদিকদের তিনি এ কথা বলেন। সেনা প্রধান জেনারেল আজিজ আহমেদ আরও বলেন, সাবেক সেনা কর্মকর্তা সিনহা হত্যা মামলার তদন্তে যারা দোষী প্রমাণিত হবে তাদের বিচার হবে।

এর আগে ৫ আগস্ট দুপুর দেড়টার দিকে কক্সবাজার বিমান বন্দর হয়ে কক্সবাজার সৈকতে অবস্থিত সেনাবাহিনীর রেস্ট হাউস জলতরঙ্গে এসে পৌছেন। এসময় পুলিশের উর্ধ্বতন কর্মকর্তা, সেনাবাহিনীর উর্ধ্বতন কর্মকর্তা এবং প্রশাসনের বিভিন্ন উর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের সাথে বৈঠকে বসেছেন। পরে বিকালের দিকে কক্সবাজারের টেকনাফের শামলাপুর ঘটনাস্থল পরিদর্শন করার কথা রয়েছে।

৩১ জুলাই সন্ধ্যার পর নিজের প্রাইভেটকারে করে তথ্যচিত্রের কাজ শেষে টেকনাফ থেকে কক্সবাজার ফেরার সময় শামলাপুর চেকপোস্টে পুলিশের গুলিতে নিহত হন সাবেক সেনা কর্মকর্তা সিনহা মো. রাশেদ খান। সিনহা রাশেদ ২০১৮ সালে সৈয়দপুর সেনানিবাস থেকে তিনি স্বেচ্ছায় অবসর নেন।
এর আগে বেলা ১২টার দিকে টেকনাফ থানা ওসি প্রদীপ কুমার দাশসহ ৯ জনকে আসামী করে কক্সবাজার আদালতে মামলা করেন সিনহার বড় বোন শারমিন শাহরিয়া ফেরদৌস। কক্সবাজার সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট তামান্না ফারাহ’র আদালতে মামলাটি দায়ের করেন। বিচারক মামলাটি আমলে নিয়ে টেকনাফ থানাকে এজাহার হিসাবে নথিভূক্ত করার নির্দেশ দিয়েছেন। একই সাথে মামলাটি র‌্যাবকে তদন্ত করারও আদেশ দেয়া হয়েছে।

মামলায় আসামী করা হয়েছে টেকনাফ বাহারছড়া তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ এসআই লিয়াকত আলী, টেকনাফ থানার ওসি প্রদীপ কুমার দাশ, এসআই নন্দ দুলাল রক্ষিত, কনস্টেবল সাফানুর করিম, কামাল হোসেন, মো. আব্দুল্লাহ আল মামুন, এএসআই লিটন মিয়া, এসআই টুটুল, কনষ্টেবল মো: মোস্তফা। এরা সকলেই টেকনাফের বাহারছড়া পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রে ওইদিন রাতে কর্মরত ছিলেন।

উল্লেখ্য, ৩১ আগস্ট রাত সাড়ে ১০টার দিকে কক্সবাজার-টেকনাফ মেরিন ড্রাইভের বাহারছড়া ইউনিয়নের শামলাপুর চেকপোস্টে পুলিশের গুলিতে নিহত হন বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর অবসরপ্রাপ্ত মেজর সিনহা মোহাম্মদ রাশেদ খান। এ ঘটনায় চট্টগ্রামের অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার মোহাম্মদ মিজানুর রহমানকে প্রধান করে একটি উচ্চ পর্যায়ের তদন্ত কমিটি গঠন করে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের জন ও নিরাপত্তা বিভাগ। একইভাবে তদন্তের স্বার্থে টেকনাফের বাহারছড়া তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ লিয়াকত আলিসহ ২০ জন পুলিশ সদস্যকে প্রত্যাহার করা হয়েছে।

আরো সংবাদ