সৈকতে জাতির পিতার বালু ভাস্কর্য উন্মোচন - কক্সবাজার কন্ঠ

রোববার, ২৪ জানুয়ারী ২০২১ ১০ই মাঘ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

রবিবার

প্রকাশ :  ২০২০-১২-১৬ ০৯:৫৯:৩৪

সৈকতে জাতির পিতার বালু ভাস্কর্য উন্মোচন

সৈকতে জাতির পিতার বালু ভাস্কর্য উন্মোচন

নিজস্ব প্রতিবেদক : কক্সবাজার সৈকতের লাবণী পয়েন্টে নির্মিত বঙ্গবন্ধুর বালু ভাস্কর্য ১৬ ডিসেম্বর দুপুরে আনুষ্ঠানিকভাবে উন্মোচন করা হয়েছে।  জেলা প্রশাসক মো. কামাল হোসেনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন কক্সবাজার সদর আসনের সংসদ সদস্য সাইমুম সরওয়ার কমল, জেলা আওয়ামীলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি এডভোকেট ফরিদুল ইসলাম চৌধুরী, সাধারণ সম্পাদক মেয়র মুজিবুর রহমান, পুলিশ সুপার মো. হাসানুজ্জামান, বীর মুক্তিযোদ্ধা কামাল হোসেন চৌধুরী, নুরুল আবছার, জেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি রেজাউল করিম, সাংগঠনিক সম্পাদক নাজনীন সরওয়ার কাবেরী, এডভোকেট তাপস রক্ষিত, এডভোকেট রনজিত দাশ, সিভিল সার্জন মাহবুবুর রহমান, জেলা যুবলীগের সভাপতি সোহেল আহম্মেদ বাহাদুর, ব্র্যান্ডিং কক্সবাজারের সমন্বয়ক ইশতিয়াক আহমেদ জয় ও ভাস্কর্য নির্মাণকারী টিম লিডার কামরুল ইসলাম শিপন।
এতে বক্তারা বলেন, কক্সবাজার সমুদ্র সৈকতের লাবণী পয়েন্টে বঙ্গবন্ধু’র দুইটি ভাস্কর্য তৈরি হয়েছে। একটি বঙ্গবন্ধুর ফ্রি স্ট্যান্ডিং ভাস্কর্য। অপরটি রিলিফ ভাস্কর্য। সৈকতে ভ্রমণে আসা দর্শনার্থীরা এই ভাস্কর্য দেখে আনন্দিত হবে। প্রায় ৬ ফুট উচ্চতা ও ১৪ ফুট প্রশস্ত এ ভাস্কর্যটি এ বাংলাদেশে নির্মিত সবচেয়ে বড় বালুর ভাস্কর্য।‘জাতির পিতার সম্মান রাখবো মোরা অম্লান’ এই প্রতিপাদ্যে স্থাপিত ভাস্কর্যটি আগামী ৩১ ডিসেম্বর পর্যন্ত দর্শকদের জন্য উন্মুক্ত থাকবে। এরপর প্রশাসনিকভাবে তা বিনষ্ট করে ফেলা হবে। সৈকতে আগত পর্যটক আর দর্শনার্থীরা ভিড় করছে বালু ভাষ্কর্যটি দেখার জন্য। প্রায় ৮ লাখ টাকা ব্যয়ে বঙ্গবন্ধুর এই বালু ভাস্কর্য নির্মাণ করছে ব্র্যান্ডিং কক্সবাজার। বক্তারা আরও বলেন, সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালি স্বাধীনতার মহান স্থপতি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ভাস্কর্য অবমাননার মৌন প্রতিবাদস্বরূপ পৃথিবীর দীর্ঘতম অবিচ্ছিন্ন বালুকাময় সৈকতের লাবণী চত্বরে প্রথমবারের মতো জাতির পিতার “বালু ভাস্কর্য” উন্মোচন করা হয়। সৈকতে আগত দেশি-বিদেশি পর্যটকদের জন্য ভাস্কর্যটি আজ হতে আগামী ৩১ ডিসেম্বর পর্যন্ত উন্মুক্ত থাকবে।

আরো সংবাদ