ভিজিএফ’র চাল পাচ্ছে দেড় লাখ পরিবার

কক্সবাজার: পবিত্র রমজান ও ঈদুল ফিতর উপলক্ষ্যে কক্সবাজারে দেড় লাখ পরিবারকে ১০ কেজি করে চাল দেয়া হচ্ছে। ত্রান ও দূর্যোগ মন্ত্রনালয়ের অধীনে সামাজিক সুরক্ষা কর্মসূচির আওতায় প্রতি বছর অসহায় দরিদ্র পরিবারকে ১০ কেজি করে চাল বিতরণ করে আসছে সরকার।
তারই ধারাবাহিকতায় এ বছর কক্সবাজার জেলার ৭১ ইউনিয়নের ১ লাখ ৪৭ হাজার ১৪০টি পরিবারের জন্য সমান সংখ্যক ভিজিএফ এর কার্ড বরাদ্দ দেয়া হয়েছে। উক্ত কার্ডের বিপরীতে সুবিধাভোগি পরিবারের লোকসংখ্যা নির্ধারণ করা হয়েছে ৬ লাখ ৬৩ হাজার ১১৩ জন। ইতোমধ্যে জেলায় ১ হাজার ৪শ ৭১ দশমিক ৪শ মে.টন চাল বরাদ্দ দিয়েছে ত্রান ও পূর্ণবাসন অধিদপ্তর।
কক্সবাজার জেলা ত্রান ও পূর্ণবাসন র্কাযালয় সূত্রে জানা যায়, পবিত্র রমজান মাস ও ঈদুল ফিতরের বিশেষ বরাদ্দের আওতায় অসহায় দুঃস্থ জনগোষ্ঠির জন্য ভিজিএফ কর্মসূচিতে জেলায় ৬ লাখ ৬৩ হাজার গরীব প্রান্তিক মানুষের জন্য ১ হাজার ৪শ ৭১ মে.টন চাল বরাদ্দ দেয়া হয়েছে । এতে প্রতি পরিবার ১০ কেজি করে চাল পাবে। ইতোমধ্যে জেলার ৭১ ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও মেম্বারদের উপকার ভোগিদের তালিকা প্রস্তত করার জন্য নির্দেশ দেয়া হয়েছে।
উপজেলা ভিত্তিক উপকারভোগির সংখ্যা এবং চাল বরাদ্দের পরিমান হলো চকরিয়ায় ১৮ ইউনিয়নে ২৭,৬৩৮ কার্ডের তথা পরিবারের জন্য ২৭৬.৩৮০ মে.টন। কক্সবাজার সদরের ১০ ইউনিয়নের ১৮,৪৪০ পরিবারের জন্য ১৮৪.৪০০ টন। কুতুবদিয়ায় ৬ ইউনিয়নের ৭৮৮২ পরিবারের জন্য ৭৯.৮২০ মে.টন। মহেশখালীর ৮ ইউনিয়নের ২৮,৫২৬ পরিবারের জন্য ২৮৫.২৬০ মে.টন। পেকুয়ার ৭ ইউনিয়নের ১১,০২৭ পরিবারের জন্য ১১০.২৭০ মে.টন। রামুর ১১ ইউনিয়নের ১৮,৭৩৭ পরিবারের জন্য ১৮৭.৩৭০ মে.টন। টেকনাফের ৬ ইউনিয়নের ১৮,৭৩০ পরিবারের জন্য ১৮৭.৩০০ মে.টন। উখিয়ার ৫ ইউনিয়নের ১৬,০৬০ পরিবারের জন্য ১৬০.৬০০ মে.টন চাল।
ভিজিএফ এর চাল বিতরণ বিষয়ে কক্সবাজার সদর উপজেলা নির্বার্হী কর্মকর্তা নোমান হোসেন প্রিন্স জানান, সদরের ১০ ইউনিয়নের চেয়ারম্যানদের কাছে সব চাল পৌছে দেয়া হয়েছে। তারা বিতরণের জন্য সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছেন । আশাকরি আগামি সপ্তাহ থেকে বিতরণ শুরু করতে পারব। তিনি নিজে কয়েকটি ইউনিয়নে উপস্থিত থেকে ১০ কেজি করে উপকার ভোগিদের হাতে চাল তুলে দেবেন বলে জানান।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*