সদর হাসপাতালে ইন্টার্ন চিকিৎসকদের কর্মবিরতি

জসিম সিদ্দিকী, কক্সবাজার: কক্সবাজার জেলা সদর হাসপাতালে বেতনের দাবীতে কর্মবিরতি করছেন ইন্টার্ন চিকিৎসকরা। ২৯ সেপ্টেম্বর সকাল ৮টা থেকে কর্মবিরতি শুরু হলেও দুপুর দিকে হাসপাতালটির তত্বাবধায়ক বরাবর লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন কর্মবিরতি করা চিকিৎসকরা।
তাদের মধ্যে নেতৃত্বে দেয়া ডা. ছোটন চাকমা জানান, তিন মাস ধরে প্রায় ৭৪ জন ইন্টার্ন চিকিৎসকদের বেতন বকেয়া আছে। বিষয়টি নিয়ে কয়েকবার অবগতও করা হয়েছে। তিনি জানান, গতকাল শনিবার দুপুরে কক্সবাজার সদর হাসপাতাল তত্বাবধায়ক ডা. পুচনু বরাবর ৭৪ জন ইন্টার্ন চিকিৎসক লিখিত অভিযোগ দিয়ে ৭২ ঘন্টার কমবিরতি দিয়েছেন। এদিকে হাসপাতালটির কক্ষের ভেতরে ইন্টার্ন চিকিৎসকদের কর্মবিরতি হওয়াতে চিকিৎসা নিতে আসা রোগীরা পড়েছেন চরম দুর্ভোগে।
আন্দোলনরত ইন্টার্ন চিকিৎসকেরা জানান, শিক্ষানবিশ হলেও তাঁরা রাত-দিন পরিশ্রম করে হাসপাতালে রোগীদের সেবা দিয়ে আসছেন। জরুরি বিভাগ থেকে শুরু করে হাসপাতালের প্রতিটি কক্ষে রয়েছে তাঁদের পদচারণ। যে যেখানে যখন ডাকছে সেখানেই ছুটে যাচ্ছেন ইন্টার্ন চিকিৎসকেরা। কিন্তু সঠিক সময়ে বেতন-ভাতা না পাওয়া দু:খজনক।এদিকে ইন্টার্ন চিকিৎসকেরা কর্মরিবতিতে থাকায় হাসপাতালের চিকিৎসা সেবা মারাত্মভাবে ব্যাহত হচ্ছে। সেবা না পেয়ে চরম দুর্ভোগে পড়েছেন রোগীরা। অনেক রোগী সঙ্কটাপন্ন হয়ে পড়েছে। বাধ্য হয়ে রোগীদেরকে প্রাইভেট হাসপাতালে স্থানান্তর করেছে স্বজনেরা। এতে বিপাকে পড়েছেন গরীব রোগীরা। কারণ টাকার অভাবে তারা ব্যয়বহুল প্রাইভেট হাসপাতালে চিকিৎসা করাতে পারছে না। সদর হাসপাতালের বিভিন্ন ওয়ার্ডে খোঁজ নিয়ে এই তথ্য জানা গেছে।
বিষয়টি নিয়ে কক্সবাজার সদর হাসপাতালের তত্বাবধায়ক ডা. পুচনু বলেন, তিন মাস ধরে বেতন-ভাতা না পাওয়াকে কেন্দ্র করে ইন্টার্ন চিকিৎসকেরা কর্মবিরতি পালন করছেন। এ ব্যাপারে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরে যোগাযোগ করা হয়েছে। আগামী এক সপ্তাহের মধ্যে বিষয়টির সুরহা হবে। আরেক প্রশ্নের উত্তরে হাসপাতালের তত্বাবধায়ক বলেন, রোগীদের দুর্ভোগের বিষয়টি সত্য নয়। কারণ হাসপাতালে মেডিকেল কর্মকর্তারা রয়েছেন। ইন্টার্ন চিকিৎসকেরা হচ্ছে সহযোগি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*