মহেশখালীর আনসার কমান্ডার ফরিদকে আইনী নোটিশ

 

সংবাদ বিজ্ঞপ্তি: অধীনস্থ সহ-উপজেলা আনসার কমান্ডারকে কারসাজি করে দায়িত্ব পালনে বাধা দেওয়া ও ঘুষ দাবির অভিযোগে মহেশখালী উপজেলা আনসার কমান্ডার ফরিদুল আলমকে আইনী নোটিশ দিয়েছে ক্ষতিগ্রস্থ সহ উপজেলা আনসার কমান্ডার সোহেল। কক্সবাজার জেলা ও দায়রা জজ আদালতের আইনজীবি নাছির উদ্দীন ৯ ডিসেম্বর মোঃ সোহেলের পক্ষে এই আইনী নোটিশ দেন।

ওই আইনী নোটিশে বলা হয়েছে, মোঃ সোহেল ২০১৫ সালের ২৫ নভেম্বর মহেশখালী উপজেলায় সহ-উপজেলা আনসার কমান্ডার হিসেবে নিয়োগপ্রাপ্ত। নিয়োগ পাওয়ার পর থেকে তিনি সততা ও দক্ষতার সাথে দায়িত্ব পালন করে আসছেন। দায়িত্ব পালন সময়ে প্রশংসনীয় অবদান ও কাজের স্বীকৃতি হিসেবে তিনি বাংলাদেশ আনসার ভিডিপি জাতীয় পুরস্কার-২০১৮ পদক অর্জন করেন। এরই মধ্যে বাংলাদেশ আনসার বাহিনী উপজেলা আনসার কোম্পানি, উপজেলা আনসার প্লাটন ও ইউনিয়ন আনসার প্লাটন সদস্য-সদস্যাদের নীতিমালা-২০১৭ প্রণয়ন করেছেন সরকার। উক্ত নীতিমালার আলোকে মোঃ সোহেল ৬ (খ) দফার আলোকে স্বপদে বহাল রয়েছেন। কিন্তু উপজেলা কমান্ডার ফরিদুল আলম ঘুষ দাবি করে দায়িত্ব পালনে মোঃ সোহেলকে অসহযোগিতা ও অবহেলা করছে। এই কারণে সোহেল সরকারি সকল সুযোগ-সুবিধা হতে বঞ্চিত রয়েছেন।

মোঃ সোহেল বার বার তাগিদ দেয়ার পরও অভিযুক্ত  ফরিদুল আলম অবৈধ লাভের আশায় কোনো  সহযোগিতা করছেন না। যার কারণে ভুক্তভোগী মোঃ সোহেল প্রতিনিয়ত হয়রানী ও চরম ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছেন। তাই আগামী ৭ দিনের মধ্যে নীতিমালা মোতাবেক মোঃ সোহেলকে অন্তর্ভূক্ত করার জন্য বলা হয়েছে। অন্যতায় ফরিদুল আলমের বিরুদ্ধে ক্ষমতার অপব্যবহার ও ঘুষ দাবির অপরাধে ফৌজদারী আদালতে মামলা দায়ের করে এর প্রতিকার চাইবে ভুক্তভোগী মোঃ সোহেল।

এদিকে  মহেশখালী উপজেলার  বহুল আলোচিত আনসার কমান্ডার ফরিদের বিরুদ্ধে বিভিন্ন গণমাধ্যমে একাধিক প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়েছে। কিন্তু সংশ্লিষ্ট দপ্তর তার বিরুদ্ধে কোনো ব্যবস্থা গ্রহণ করছে না বলে দাবী করছেন ভুক্তভোগি  সহ আনসার কমান্ডার সোহেল।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*