৫ উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চলছে ভোট গ্রহণ

আশানুরূপ ভোটার নেই, অনেক কেন্দ্র শূন্য!

কফিল বিন আমির, নিজস্ব প্রতিবেদক: তৃতীয় ধাপে উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে কক্সবাজারের ৫ উপজেলায় সকাল ৮টা থেকে ভোটগ্রহণ চলছে। সকাল থেকে কেন্দ্রগুলোতে ভোটাদের উপস্থিতি একেবারেই কম। সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণ পরিবেশে ভোটগ্রহণ করতে নিচ্ছিদ্র নিরাপত্তা জোরদার করেছে আইন-শৃঙ্খলাবাহিনী। কিন্তু কোথাও আশানুরূপ ভোটার ভোট দিতে আসছে না। ভোট শুরুর দুই ঘন্টা অতিবাহিত হলেও কোনো উপজেলায় পর্যাপ্ত ভোটার ভোট দিতে আসেনি। বিশেষ করে মহিলা ভোটারের সংখ্যা খুবই কম। এমনকি অনেক কেন্দ্রে একটি ভোটাররাও লাইনে নেই। স্থানীয় পর্যায়ে খোঁজ নিয়ে এই তথ্য জানা গেছে।
জানা গেছে, আজ ২৪ মার্চ কক্সবাজারের মহেশখালী, পেকুয়া, রামু, উখিয়া ও টেকনাফে ভোট অনুষ্ঠিত হচ্ছে। সকাল ৮টা থেকে ভোটগ্রহণ শুরু হলেও ভোটারের উপস্থিতি তেমন নেই। মহিলা ভোটারের উপস্থিতি খুবই নগন্য। যেসব ভোটাররা ভোট দিতে আসছে তাদের মধ্যে তেমন উৎসাহও দেখা যাচ্ছে না। তবে অনেক কেন্দ্রে দুই ঘন্টা পেরিয়ে গেলেও লাইনে ভোটারের উপস্থিতি দেখা মেলেনি। সকাল সাড়ে ৮টা পর্যন্ত মহেশখালীর গোরকঘাটা চরপাড়ার সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে লাইনে একজন ভোটার ছিলো না। সকাল ৯টায় উখিয়ার ইনানী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে লাইনে একজন ভোটারও ছিলো না। ভোটকেন্দ্রের নিচে একটি ছাগল বিশ্রাম নিতে দেখা গেছে। একইভাবে সাড়ে ৯টায় উখিয়া মডেল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রেও একজন ভোটার ছিলো না। এই কেন্দ্রে দেড় ঘন্টায় ৪নং বুথে ১টি মাত্র ভোট পড়েছে। ৯:৪০ মিনিটে ভোটার শূন্য হোয়ানক টাইমবাজার সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্র। ৯:৪০ মিনিটে মহেশখালীর হোয়ানক টাইমবাজার সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে লাইনে একজনও ভোটারের উপস্থিতি ছিলোন। এই কেন্দ্রটিতে আওয়ামী লীগ-বিএনপির ভোটার সমান সমান। এরকম আরো অনেক কেন্দ্র ভোটার শূন্য রয়েছে বলে খবর আসছে। ৯টা ৪৪ মিনিটের সময় উখিয়ার কুতুপালং সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রের লাইনে একজন ভোটারও ছিলো না।
ভোটারের তেমন উপস্থিতি ভোটগ্রহণকারী কর্মকর্তা-কর্মচারীরা অলস সময় কাটাচ্ছে। বিচ্ছিন্নভাবে যেসব ভোটাররা আসছে তারা সরাসরি কেন্দ্রে ঢুকে ভোট দিয়ে চলে যাচ্ছে বলে জানিয়েছে কর্মকর্তারা। অলস সময় কাটাচ্ছে কুতুবজোম মেহেরিয়াপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রের কর্মকর্তারা।
বিএনপি-জামায়াত বিহীন এই নির্বাচনে আওয়ামী লীগ ও স্বতন্ত্র প্রার্থীরা নির্বাচনে এসেছে। স্বতন্ত্র প্রার্থীরাও প্রায়ই আওয়ামী ঘরানা। এই কারণে বিএনপি জামায়াতের লোকজন ভোট দিতে কেন্দ্রে যাচ্ছে না বলে খবর নিয়ে জানা গেছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*