রোহিঙ্গা নারীরা বিয়ের প্রলোভনে যাচ্ছে মালয়েশিয়ায়

নিজস্ব প্রতিবেদক: বিয়ের প্রলোভনে গভীর সাগর পাড়ি দিয়ে মালয়েশিয়া যেতে তৎপর হয়ে উঠেছে রোহিঙ্গা নারীরা। তাদের এ কাজে সহায়তা করছেন ক্যাম্প ভিত্তিক কিছু দালাল চক্র। সাগরে প্রতিনিয়তই পুলিশ ও আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর হাতে আটক হচ্ছে রোহিঙ্গা যুবক ও নারীরা। দেশীয় কিছু দালাল চক্রের সহায়তায় আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর কড়া নজরদারি উপেক্ষা করে সাগরে পাড়ি জমাচ্ছে এসব রোহিঙ্গা। সম্প্রতি আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর হাতে আটক হওয়ার পর বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে অর্থের বিনিময়ে মালয়েশিয়া পাড়ি জমানোর তথ্য বেরিয়ে আসে। অনুসন্ধানে জানা যায়, উখিয়া-টেকনাফের ৩০ ক্যাম্পে অস্থায়ীভাবে বসবাসরত রোহিঙ্গার মাঝে ছড়িয়ে পড়েছে কিছু দালাল চক্র। যারা মূলত এসব রোহিঙ্গা নারীদের টার্গেট করে প্রলোভন দেখাচ্ছে। এ ফাঁদে পা দিয়ে রোহিঙ্গা নারীরা মালয়েশিয়া পাড়ি জমাতে রাজি হচ্ছে। আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর নজর এড়াতে রাতের আঁধারে সাগর পাড়ি দিচ্ছে তারা। আর সাগর পাড়ি দিতে যেয়েই রোহিঙ্গারা আটক হচ্ছে পুলিশ ও আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর হাতে। সম্প্রতি সাগর পথে টহল দেয়ার সময় কোস্টগার্ড, বিজিবি ও র‌্যাব-পুলিশের হাতে অসংখ্য রোহিঙ্গা নারী-পুরুষ আটক হয়েছে। এসব নারীরা বিয়ের আশায় মালয়েশিয়া যেতে মরিয়া। মালয়েশিয়ায় অবস্থানরত রোহিঙ্গা যুবকদের সঙ্গে আটক হওয়া রোহিঙ্গা নারীদের অনেকেরই ফোনে বিয়ে ঠিক হয়েছে। উদ্ধার হওয়া নারীদের অনেকেই আগে থেকেই মালয়েশিয়ায় অবস্থানরত স্বামীর কাছে যেতে চাইছে। বিজিবির হাতে উদ্ধার হওয়া নারীদের সঙ্গে কথা বলে এসব তথ্য জানা গেছে।
টেকনাফ ২ বিজিবির ভারপ্রাপ্ত অধিনায়ক লেফটেন্যান্ট কর্নেল সরকার মোহাম্মদ মোস্তাফিজুর রহমান জানান, পাচারে কারা জড়িত তাদের চিহ্নিত করার কাজ চলছে। খুব শীঘ্রই তাদের আইনের আওতায় নিয়ে আনা হবে। তিনি আরও বলেন, সীমান্ত ও উপকূলে বিজিবির অতিরিক্ত টহল জোরদার করা হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*