টেকনাফে বন্যহাতিরা ঢুকে পড়ছে লোকালয়ে !

কক্সবাজার: কক্সবাজারের টেকনাফ উপজেলার পাহাড়গুলো ছিল বন্যহাতির অভয়ারণ্য। প্রাচীন ওই পাহাড়গুলোতে ছিলো হাতির বাসস্থল। সম্প্রতি রোহিঙ্গারা ওই পাহাড়ে আর বনে আশ্রয় নেয়ায় হাতির আবাসস্থল হারিয়ে যায়। বসবাসের উপযুক্ত পরিবেশ না থাকায় প্রতিনিয়ত হাতিগুলো লোকালয়ে ঢুকে পড়ছে। এখন খাদ্যের অভাবে হাতিগুলো লোকালয়ে চলে আসছে। এ নিয়ে স্থানীয়রা চরম অসন্তোষের পাশাপাশি আর্তকে দিন কাটাচ্ছে। জানাগেছে, ১৪ জুন দুপুরে কক্সবাজার-টেকনাফ সড়কের নাইটংপাড়াস্থ পাহাড়ের চূড়া থেকে এক ক্ষুধার্ত হাতি খুব দুর্বল হয়ে ক্ষুধা নিবারণের জন্য লোকালয়ে ঢুকে পড়ে। পরে লতা পাতা খেয়ে ওই হাতি চলে যায় পাহাড়ের উপরে।  নাইটংপাড়ার পাশে রয়েছে একাধিক উঁচু পাহাড়। ওই পাহাড়ে বসবাস করছে বিশাল রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠী। বতর্মানে পাহাড়ে নেই কোন গাছপালা আর লতাপাতা। এক সময় পাহাড় গুলো গাছপালায় ভরপুর ছিল আজ সেই পাহাড়গুলো মরুভূমিতে রুপ নিয়েছে।

স্থানীয় জামাল হোসেন ও সংবাদকর্মী মোহাম্মদ আব্দুল্লাহ বলেন, যেহেতু বনের কাছাকাছি বসবাস প্রায় সময় দেখা যায় পাহাড় থেকে রাতে-দিনে হাতি চলে আসে গ্রামে। কিন্তু তাদেরকে দেখা যায় খুবই দুবর্ল ও ক্ষুধার্ত। তারা আমাদের পাশে পাহাড়ের কলাগাছ ও লতাপাতাসহ বিভিন্ন প্রজাতির পাহাড়ি ঢালপালা খেয়ে চলে যায়। তবে হাতির ভয়ে আমাদের দিন কাটাতে হচ্ছে। কারণ যেকোন সময় হাতি গুলো আমাদের ঘরবাড়িতে আক্রমণ করে ক্ষতি করতে পারে। তিনি আরও জানান, জরুরী ভিত্তিতে হাতিগুলো সংরক্ষণ করা প্রয়োজন ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*