এনজিও ব্যুরোর ডিজি..অনুদানের টাকায় ভোগ বিলাস মেনে নেয়া হবে না

উখিয়া প্রতিনিধি: প্রধানমন্ত্রী কার্যালয়ের এনজিও বিষয়ক ব্যুরোর মহা পরিচালক সরকারের অতিরিক্ত সচিব কে এম আবদুস সালাম বলেছেন, অনুদানের টাকা নিয়ে ভোগ বিলাস বা কোন ধরণের অনিয়ম মেনে নেয়া হবে না। মানবতার জন্য প্রদত্ত বৈদেশিক অনুদানের অর্থ ব্যয়ে স্বচ্ছতা নিশ্চিত করতে হবে। বিভিন্ন দেশী বিদেশী সংস্থা গুলোর লোকজনদের উদ্দেশ্য তিনি কোন প্রকারের রাজনীতি না করে রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনে সরকারের উদ্যেগে এগিয়ে আসার আহবান জানান। ৬ জুলাই দুপুরে রোহিঙ্গা ক্যাম্প গুলোতে স্থানীয় ক্ষতিগ্রস্থ লোকজনের জন্য আয়োজিত এক দিনের দক্ষতা উন্নয়ন ও চাকরি মেলা উদ্বোধনকালে প্রধান অতিথির বক্তব্যে দেন এনজিও ব্যুরোর মহা পরিচালক। তিনি আরও বলেন, কক্সবাজারের উখিয়া ও টেকনাফের মানুষরা তাদের সর্বস্ব উজাড় করে দিয়ে রোহিঙ্গাদের প্রতি প্রথমে যে মহানুভবতা দেখিয়েছেন তা ইতিহাসে বিরল। জাতিসংঘসহ দেশী বিদেশী সেবা সংস্থা গুলোকে উখিয়া ও টেকনাফের ক্ষতিগ্রস্থ মানুষদের প্রতি আলাদা মানবতার দৃষ্টিতে তাদের ক্ষতি পুষিয়ে দেয়ার আন্তরিকতা দেখানোর আহবান জানান। কক্সবাজার জেলা আওয়ামীলীগ সভাপতি অ্যাডভোকেট সিরাজুল মোস্তফা বলেন, উখিয়া ও টেকনাফের ক্ষতিগ্রস্থ মানুষের কারণে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা মাদার অফ হিউম্যানেটি অর্জন করেছেন। বাংলাদেশ বিশ্ব ব্যাপী মানবিক দেশ হিসেবে স্বীকৃতি লাভ করেছে। তাই ক্ষতিগ্রস্থ লোকজনদের কোন ভাবে অবহেলা করা যাবে না। উখিয়া উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান অধ্যক্ষ হামিদুল হক চৌধুরী বলেন, ক্ষতিগ্রস্থ হিসেবে উখিয়া ও টেকনাফের বেকার জনগোষ্ঠী রোহিঙ্গা ক্যাম্পের সব ধরণের চাকরি ও সেবা পাওয়ার কথা। কিন্তু দীর্ঘ প্রায় দুই বছর ধরে তারা চাকরির জন্য বিভিন্ন এনজিওতে ধর্ণা দিয়ে চাকরি পাচ্ছে না। কক্সবাজারের জেলা প্রশাসক মো. কামাল হোসেন বলেন, উখিয়া ও টেকনাফের শিক্ষিত চাকরি প্রত্যাশীদের রোহিঙ্গা ক্যাম্প মূখী চাকরির পাশাপাশি নিজেদের দক্ষতা উন্নয়ন করে সরকারি ও বেসরকারী বিভিন্ন পেশায় নিয়োজিত হয়ে দেশের উন্নয়নে ভূমিকা রাখার আগ্রহী হওয়ার আহবান জানান। তিনি স্থানীয় বেকার জনগোষ্ঠীকে দক্ষ করে গড়ে তুলতে এ ধরণের আরো ব্যবস্থা গ্রহণের কথা জানান। জেলা প্রশাসক বলেন, উখিয়া ও টেকনাফের উন্নয়নের জন্য রোহিঙ্গা সংক্রান্ত বৈদেশিক অনুদানের ২৫ শতাংশ নিশ্চিত করা হয়েছে। এ মেলার ধারাবাহিকতা চলমান থাকবে। পর্যায়ক্রমে স্থানীয় দক্ষ বেকার জনগোষ্ঠীর কর্মসংস্হানের ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে তিনি জানান। কক্সবাজার জেলা প্রশাসক মো. কামাল হোসেনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত দিনব্যাপী দক্ষতা উন্নয়ন ও চাকরি মেলার উদ্ভোধনী অনুষ্ঠানে উপস্থিত থেকে বক্তব্য রাখেন, কক্সবাজার জেলা আওয়ামীলীগ সাধারন সম্পাদক ও কক্সবাজার পৌর মেয়র মুজিবর রহমান, অতিরিক্ত শরণার্থী ত্রাণ ও প্রত্যাবাসন কমিশনার কাজী মো. মোজাম্মেল হক, কক্সবাজার জেলা পুলিশ সুপার এবিএম মাসুদ হোসেন, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক মো. আশরাফুল আফসার, উখিয়া ইউএনও মো. নিকারুজ্জামান চৌধুরীর, ইন্টার সেক্টর কোঅর্ডিশন গ্রুপের (আইএসসিজি) সিনিয়র কো অর্ডিনেটর নিকোল এপিটিং, আন্তর্জাতিক অভিবাসন সংস্থা এর উপ মিশন প্রধান ম্যানুয়াল মনিজ পেরেরা, ইউএনএইচসিআর এর কক্সবাজার হেড অফ সাব মারিন ডিন কাইদুমচাইসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক নেতা, জনপ্রতিনিধি উপস্থিত ছিলেন। সকাল থেকে ভারী বর্ষনের মাঝেও কয়েক হাজার চাকরি প্রত্যাশী নারী পুরুষের দূর্ভোগ মাথায় নিয়ে ঢল নেমেছিল উখিয়া উচ্চ বিদ্যালয় খেলার মাঠে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*