অবশেষে ঘরে ফিরছেন এমভি আব্দুল্লাহর নাবিকরা - কক্সবাজার কন্ঠ

রোববার, ১৯ মে ২০২৪ ৫ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

রবিবার

প্রকাশ :  ২০২৪-০৫-১৪ ০৫:০৩:১৪

অবশেষে ঘরে ফিরছেন এমভি আব্দুল্লাহর নাবিকরা

অবশেষে ঘরে ফিরছেন এমভি আব্দুল্লাহর নাবিকরা

জসিম সিদ্দিকী, কক্সবাজার : সোমালিয়ান জলদস্যুদের হাতে আক্রান্ত বাংলাদেশী জাহাজ এমভি আব্দুল্লাহর ২৩ নাবিক অবশেষে ঘরে ফিরতে যাচ্ছেন । আজ মঙ্গলবার (১৪ মে) বিকালে নাবিকরা জাহাজ ছেড়ে তীরে উঠে আসবেন বলে জানিয়েছেন জাহাজটির মালিকপক্ষ কবির গ্রুপের মিডিয়া ফোকাল পার্সন মিজানুল ইসলাম। গতকাল সোমবার (১৩ মে) সন্ধ্যা সাড়ে ৬টায় এমভি আব্দুল্লাহ বঙ্গোপসাগরের কুতুবদিয়া চ্যানেলে নোঙর করে। সেখানে জাহাজটি পরিচালনার জন্য নতুন ২৩ নাবিক দায়িত্ব বুঝে নিবেন।

কবির গ্রুপের মিডিয়া ফোকাল পার্সন মিজানুল ইসলাম বলেন, কুতুবদিয়া থেকে একটি লাইটার জাহাজে করে নাবিকদের কেএসআরএম লাইটার জেটিতে আনা হবে। সেখান থেকে তারা নিজ নিজ বাড়িতে ফিরে যাবেন। নাবিকদের নতুন দলটি ইতোমধ্যে কুতুবদিয়ার উদ্দেশে রওনা হয়েছেন।

তিনি আরও বলেন, সোমালিয়ানা জলদস্যুদের কাছ থেকে মুক্ত হওয়ার আট দিন পর গত ২১ এপ্রিল বিকাল সাড়ে ৪টায় সংযুক্ত আরব আমিরাতের আল হামরিয়া বন্দরে এসে পৌঁছে এমভি আব্দুল্লাহ। সেখানে জাহাজের ৫৫ হাজার মেট্রিক টন কয়লা আনলোড করা হয়। গত ২৭ এপ্রিল জাহাজটি আল হামরিয়া বন্দর থেকে সংযুক্ত আরব আমিরাতের মিনা সাকার বন্দরে যায়। সেখান থেকে চুনা পাথর লোড করে ২৯ এপ্রিল বাংলাদেশের উদ্দেশে রওনা দেয়। ১৪ দিনের মাথায় জাহাজটি বাংলাদেশের কুতুবদিয়া চ্যানেলে এসে পৌঁছে।

 

উল্লেখ্য, আফ্রিকার দেশ মোজাম্বিক থেকে কয়লা নিয়ে সংযুক্ত আরব আমিরাতে যাওয়ার পথে গত ১২ মার্চ বাংলাদেশ সময় দুপুর দেড়টার দিকে ভারত মহাসাগরে সোমালিয়ান জলদস্যুর কবলে পড়ে এমভি আব্দুল্লাহ। জলদস্যুরা ১৪ মার্চ দুপুর ২টার দিকে জাহাজটিকে সোমালিয়ার উপকূলে নিয়ে যায়। সোমালিয়ান উপকূলে দীর্ঘ ৩১ দিন জিম্মি দশায় থাকার পর ১৩ এপ্রিল মুক্ত হন নাবিকরা।

মুক্তিপণ দেওয়ার পর ১৩ এপ্রিল রাত ৩টার দিকে জলদস্যুরা জাহাজ থেকে নেমে যায়। এরপর ইউরোপীয় ইউনিয়নের নৌবাহিনীর দুটি যুদ্ধজাহাজের নিরাপত্তায় এমভি আব্দুল্লাহ উচ্চ ঝুঁকিপূর্ণ সোমালিয়ান সমুদ্র উপকূল পাড়ি দিয়ে ২১ এপ্রিল বিকাল সাড়ে ৪টায় সংযুক্ত আরব আমিরাতের আল হামরিয়া বন্দরে পৌঁছায়।

আরো সংবাদ