ঈদে সৈকতে প্রবেশ করা যাবে না, আসছে আরও ১ দফা লকডাউন - কক্সবাজার কন্ঠ

বুধবার, ২৩ জুন ২০২১ ৯ই আষাঢ়, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

প্রকাশ :  ২০২১-০৫-১৪ ১৩:১৭:১৮

ঈদে সৈকতে প্রবেশ করা যাবে না, আসছে আরও ১ দফা লকডাউন

ঈদে সৈকতে প্রবেশ করা যাবে না, আসছে আরও ১ দফা লকডাউন
Spread the love
নিউজ ডেস্ক :  ঈদের টানা ছুটিতে লাখো মানুষের ঢল নামে বিশ্বের দীর্ঘতম সমুদ্র সৈকত কক্সবাজারে। কিন্তু এবারের ঈদেও থাকছে সৈকতে লাখো পর্যটক। করোনাভাইরাস সংক্রমণের দ্বিতীয় ঢেউ সামাল দিতে গেল বছরের ঈদগুলোর মতো এবারও বন্ধ থাকছে কক্সবাজারের সব পর্যটন কেন্দ্র। সৈকতের প্রতিটি প্রবেশদ্বারে থাকছে ট্যুরিস্ট পুলিশের কড়া পাহারা। তবে করোনার সংক্রমণ কমলে সরকার পর্যটন স্পটগুলো খুলে দিবে এমন প্রত্যাশা করছেন পর্যটন সংশ্লিষ্টরা।
বিশ্বের দীর্ঘতম সমুদ্র সৈকত কক্সবাজার। প্রতিবছরই ঈদের ছুটিতে এই সৈকতে ছুটে আসে হাজার হাজার মানুষ। কিন্তু গেল বছরের মার্চে দেশে করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ দেখা দিলে সরকার লকডাউনের ঘোষণা দিয়ে বন্ধ করে দেয় পর্যটন কেন্দ্রগুলো। পরে সংক্রমণ কমলে সরকার বিধি-নিষেধ শিথিল করে খুলে দেয়।
কিন্তু সংক্রমণের দ্বিতীয় ঢেউয়ে পহেলা এপ্রিলে ফের লকডাউন আসে, আবার বন্ধ হয়ে যায় সমুদ্র সৈকতসহ কক্সবাজারের পর্যটন কেন্দ্রগুলো। যা এখনো জারি আছে। তবে এখনো সংক্রমণ না কমায় ঈদের ছুটিতেও খুলছে না সৈকত। বরাবরেই ফাঁকা থাকছে সাগর। আর সৈকতের প্রবেশদ্বারে কড়া পাহারা থাকবে বলে জানিয়েছে ট্যুরিস্ট পুলিশ।
কক্সবাজার ট্যুরিস্ট পুলিশের সহকারি উপ-পরিদর্শক মো. সোহেল রানা বলেন, করোনাভাইরাসের কারণে দেশের সকল পর্যটন কেন্দ্র বন্ধ রয়েছে। সেক্ষেত্রে কক্সবাজারের সব পর্যটন স্পট বন্ধ থাকবে। কাউকে কক্সবাজার সমুদ্র সৈকতে প্রবেশ করতে দেয়া হবে না। সৈকতের প্রবেশদ্বারের প্রতিটি পয়েন্টে ট্যুরিস্ট পুলিশ রয়েছে। একই সঙ্গে চেকপোস্ট বসা হয়েছে। এছাড়াও সর্বাক্ষনিক টহলে থাকবে ট্যুরিস্ট পুলিশ।
এদিকে কক্সবাজার জেলা প্রশাসন জানিয়েছে; করোনা সংক্রমণ বাড়ায় আপাতত কক্সবাজারের পর্যটন কেন্দ্রগুলো খুলে দেয়ার কোন সিদ্ধান্ত আসেনি। ঈদেও পর্যটক এবং স্থানীয় দর্শনার্থীদের জন্য সৈকতে প্রবেশ বন্ধ থাকবে।

আরো সংবাদ