করোনা আক্রান্ত হয়ে সন্তান রেখেই চলে গেলেন গৃহবধূ - কক্সবাজার কন্ঠ

বৃহস্পতিবার, ৬ অক্টোবর ২০২২ ২১শে আশ্বিন, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

বৃহস্পতিবার

প্রকাশ :  ২০২১-০৭-১৭ ১৩:৪০:৫৩

করোনা আক্রান্ত হয়ে সন্তান রেখেই চলে গেলেন গৃহবধূ

করোনায় কক্সবাজারে আরও ৫ জনসহ মোট মৃত্যু ১৪৯
শেয়ার করুন

নিজস্ব প্রতিবেদক :  সন্তান সম্ভবা তরুণী বধূ জারিন তাসমীন মুন্নী (২২) কোভিড-১৯ পজিটিভ হয়ে কক্সবাজার জেলা সদর হাসপাতালে ভর্তি হয়েছিলেন। জীবন-মৃত্যুর সন্ধিক্ষনে শনিবার (১৭জুলাই) ভোরে চিকিৎসকদের আপ্রাণ প্রচেষ্টায় ঝুঁকিপূর্ণ অপারেশনে জন্ম দিলেন ফুটফুটে এক পুত্র সন্তান। সেই সদ্যজাত সন্তানকে রেখেই গৃহবধূ চলে গেলেন না ফেরার দেশে।

ভোর ৫ টার দিকে কক্সবাজার সদর হাসপাতালের আইসিইউ চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান। শিশু সন্তানটি বর্তমানে হাসপাতালের নবাজতক ওয়ার্ডে রয়েছে। উখিয়ার জ্যেষ্ঠ সাংবাদিক ফারুক আহমেদ জানিয়েছেন, গত বুধবার (১৪ জুলাই) তীব্র শ্বাসকষ্ট নিয়ে কক্সবাজার শহরের একটি বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি হন জারিন তাসমীন মুন্নী। অবস্থার অবনতি হলে বৃহস্পতিবার তাকে কক্সবাজার জেলা সদর হাসপাতালের আইসিইউতে ভর্তি করা হয়।

সাংবাদিক ফারুক নিজেও করোনায় আক্রান্ত হয়ে বর্তমানে হোম কোয়ারেন্টাইনে রয়েছেন। করোনায় মারা যাওয়া জারিন তাসমীন মুন্নীর স্বামী শাহাদাৎ হোসেন বিপু সাংবাদিক ফারুকের আপন ভাইপো। তিনি উখিয়ার রতœাপালং ইউনিয়নের খোন্দকার পাড়া গ্রামের অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষক সিরাজুল ইসলামের ছেলে। বিপু একটি বেসরকারি সংস্থায় চাকরি করেন। মাত্র বছর খানেক আগে তাদের বিয়ে হয়েছিল।

করোনা আক্রান্ত হয়ে সন্তান রেখেই চলে গেলেন গৃহবধূ

করোনা আক্রান্ত হয়ে সন্তান রেখেই চলে গেলেন গৃহবধূ

জারিন তাসমীন মুন্নী কক্সবাজার সিটি কলেজে স্নাতকের ছাত্রী ছিলেন। তার পিতা অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষক আব্দুল লতিফ উখিয়ার হলদিয়া পালং ইউনিয়নের কোলেসা পাড়ার বাসিন্দা।

এদিকে তার মৃত্যুতে সর্বত্র শোকের ছায়া নেমে এসেছে। নাম প্রকাশ না করার শর্তে কক্সবাজারের এক সিনিয়র চিকিৎসক জানান, একটু বিলম্বিত কভিড টেস্টের কারণে কি রকম সর্বনাশ হতে পারে এটিই তার উদাহরণ। মুন্নীর এমন ভয়াবহ অবস্থা ছিল যে, তাকে হাসপাতালে আনার সাথে সাথেই আইসিইউতে অক্সিজেনের উপর রাখতে হয়েছে। এমনকি ঘন্টায় ৮০ লিটার অক্সিজেন দিতে হয়েছে তাকে।

 


শেয়ার করুন

আরো সংবাদ