কাজের মেয়ের গর্ভে সন্তান : ২১ বছর পর পিতৃত্বের দাবী - কক্সবাজার কন্ঠ

শুক্রবার, ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২১ ৯ই আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

শুক্রবার

প্রকাশ :  ২০২১-০৭-২৬ ১৯:৩৪:৪৩

কাজের মেয়ের গর্ভে সন্তান : ২১ বছর পর পিতৃত্বের দাবী

কাজের মেয়ের গর্ভে সন্তান : ২১ বছর পর পিতৃত্বের দাবী
Spread the love

জসিম সিদ্দিকী : কক্সবাজারের কুতুবদিয়া উপজেলার উত্তর ধুরুং এলাকার বিতর্কিত মেম্বার ও চেয়ারম্যান প্রার্থী আব্দুল হালিমকে পিতা দাবি করে সংবাদ সম্মেলন করেছেন আব্দুল হাকিম নামের এক যুবক। এ ঘটনার সত্যতা যাচাইয়ের প্রয়োজনে ডিএনএ টেস্ট করার কথা উঠে আসছে আলোচনা সমালোচনায়। ঘটনাটি জানাজানি হওয়ার পর কক্সবাজার জেলাজুড়ে ব্যাপক চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে। এই চাঞ্চল্যকর ঘটনার বিবরণ নিয়ে কক্সবাজার জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক নাজনীন সরওয়ার কাবেরী সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেজবুকে একটি ভিডিও পোষ্ট করেছেন। ইতোমধ্যে ভিডিওটি ব্যাপক ভাইরাল হয়েছে। ওই ভিডিতে ছেলে আব্দুল হাকিমের সাথে তার মা মাজেদা খাতুনকেও দেখা গেছে। এতে তাদের সর্ম্পকের বিষয়ে নানান প্রশ্নের জবাব দিয়েছেন। ওই ভিডিও’র সূত্র ধরে এ ঘটনাটি নিশ্চিত হওয়া গেছে।

কাজের মেয়ের গর্ভে সন্তান : ২১ বছর পর পিতৃত্বের দাবী

কাজের মেয়ের গর্ভে সন্তান : ২১ বছর পর পিতৃত্বের দাবী

জানাগেছে, আব্দুল হালিম মেম্বারের ঘরে গৃহকর্মী ছিলেন মাজেদা খাতুন। সে সময় অথ্যাৎ ২০০০ সালের দিকে তাদের ২ জনের মধ্যে অনৈতিক সর্ম্পকের সৃষ্টি হয়। এর জের ধরে ২০০১ সালে জন্ম হয়েছিল আব্দুল হাকিম। ঘটনাটি টাকা পয়সার বিনিময়ে খানিকটা বন্ধ করলেও পরে প্রকাশ্য হয়ে যায়। কিন্তু আব্দুল হাকিম পয়সাওয়ালার ঔরসে জন্মগ্রহণ করলেও স্বীকৃতি মেলেনি মা ও তার। যার ফলে হাকিম এখনও জন্ম নিবন্ধন করতে পারেননি। যদিও প্রতিটি নাগরিকের মুক্তি জন্যই ৭১ এর স্বাধীনতা।

এ নিয়ে আব্দুল হাকিম জানান, তার গর্ভধারিণী মায়ের কাছ থেকে জানতে পারেন, তার পিতা আবদুল হালিম মেম্বার এবং মায়ের হাত ধরে অসংখ্যবার পিতার কাছেও যান। তার পিতার নির্বাচনী কর্মকান্ডে অবিরাম পরিশ্রমও করেন। তিনি জানান, পিতা আবদুল হালিম মেম্বার তাকে বুকে জড়িয়ে ধরে আদর করেন। মাথায় হাত বুলিয়ে দিয়ে দোয়া করেন। কিন্তু পিতার রাজনৈতিক শত্রু ও সামাজিক অবস্থানসহ নানা সমীকরণ দেখিয়ে তাদেরকে এখনও স্বীকৃতি দেননি পিতা আব্দুল হালিম মেম্বার।
আব্দুল হাকিম আরও জানান, তার বয়স বাড়ার কারণে পিতৃত্বের প্রয়োজনীয়তা উপলব্ধি করেন। বিষয়টি নিয়ে মা-ছেলে আব্দুল হালিম মেম্বারের সাথে যোগাযোগ করেন। তারা ঘরোয়াভাবে বিষয়টি সমাধানের চেষ্টা করেন। আবদুল হালিম মেম্বার কৌশলে সময়ক্ষেপণ করতে থাকেন। তাই অনন্যোপায় হয়ে পিতৃত্বের দাবিতে তারা মা ছেলে সংবাদ সম্মেলন করতে বাধ্য হয়েছেন।

এব্যাপারে অভিযুক্ত আব্দুল হালিম মেম্বার জানান, তিনি আগামীতে চেয়ারম্যান নির্বাচন করবেন। তাই তার প্রতিপক্ষরা তার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করছে। ঘটনাটি সম্পূর্ণ ভিত্তিহীন বলে দাবী করলেও ডিএনএ টেস্টের কথা বলায় তিনি বিষয়টি এড়িয়ে যান।

কক্সবাজার জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক নাজনীন সরওয়ার কাবেরী জানান, আমরা সন্তানের স্বীকৃতির জন্য মাজেদার সাথে আব্দুল হালিম মেম্বারের বিবাহের দাবী করছি। নতুবা ডিএনএ টেস্টের মাধ্যমে আইনের আশ্রয় নিতে বাধ্য হবো।

আরো সংবাদ