কালারমারছড়ায় সম্প্রীতির বন্ধনে মিলনমেলা - কক্সবাজার কন্ঠ

বৃহস্পতিবার, ৮ ডিসেম্বর ২০২২ ২৩শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

বৃহস্পতিবার

প্রকাশ :  ২০২২-১১-১২ ১৫:৫৭:৪৯

কালারমারছড়ায় সম্প্রীতির বন্ধনে মিলনমেলা

কালারমারছড়ায় সম্প্রীতির বন্ধনে মিলনমেলা
সংবাদটি শেয়ার করুন

বার্তা পরিবেশেক : কক্সবাজারের মহেশখালী উপজেলার কালারমারছড়া ইউনিয়নে (আঁধারঘোনা, মিজ্জিরপাড়া, ছড়ারলামা, পানেরছড়া, গোদারপাড়া ও ডেইল্যাঘোনা (আংশিক) নিয়ে কালারমারছড়ার দ্বিতীয় বৃহত্ততম ৯নং ওয়ার্ড গঠিত হয়েছে।

এই ওয়ার্ডের তিন শতাধাধিক ব্যক্তির সমন্বয়ে গত ১১ নভেম্বর, শুক্রবার সম্প্রীতির বন্ধনে ৯ নং ওয়ার্ড) নামে মিলনমেলা ও ভোজনের আয়োজন করা হয়।

কয়েকজনের সু-প্রচেষ্টায় এই আয়োজনে প্রত্যেকের ৩০০ টাকা হারে চাঁদা ও ক্ষেত্র বিশেষ আরও বেশি পরিমাণ চাঁদার সমন্বয়ে বিশাল এ মিলনমেলা ও ভোজনে AMD লগো সম্বলিত No Generation Gap শিরোনামে প্রত্যেককে একটি করে টি-শার্ট পরে অংশগ্রহণ করেন।

শুক্রবার জুমার নামাজ শেষে শাহ মজিদিয়া বালিকা দাখিল মাদরাসার মাঠে দুপুরের খাবারের আয়োজন শেষে আলোচনাসভা অনুষ্ঠিত হয়।

এতে এলাকার ( ৯ নং ওয়ার্ড ) কৃষক, শ্রমিক, ছাত্র, শিক্ষক, সাংবাদিক, রাজনীতিবিদ, এডভোকেট, জনপ্রতিনিধি, এনজিও কর্মী, ব্যবসায়ী ও বিভিন্ন শ্রেণিপেশার মানুষ সম্প্রীতির বন্ধনে অংশগ্রহণ করেন।

সম্প্রীতির বন্ধনের সংক্ষিপ্ত আলোচনায় আয়োজনের সমন্বয়ক শামসুল আলম শাহী বলেন, বৃহত্তর ৯নং ওয়ার্ডের বিভিন্ন শ্রেণিপেশার মানুষ, গরিব-ধনী, ও অন্যান্যের মধ্যে দূরত্ব কমানো, বন্ধন ও সম্প্রীতি বাড়ানোর লক্ষ্যে আমরা এই উদ্যোগ গ্রহণ করেছি। এতে কারও ব্যক্তিস্বার্থ নেই সম্প্রীতির বন্ধনই একমাত্র উদ্দেশ্য। ফাহিম রায়হানের সঞ্চালনায় সমন্বয়ক শামসুল আলম শাহীর সভাপতিত্বে আলোচনায় আরও অংশ নেন আবুল খায়ের লেদু, কবির আহমদ (শিক্ষক), রমজান আলী, প্রধান শিক্ষক আমিনুল এহসান মানিক, পুলিশ অফিসার মোহাম্মদ সোলাইমান, সাংবাদিক মোয়াজ্জেম হোসেন শাকিল, শামসুল আলম, মেম্বার আবু আহমেদ (প্যানেল চেয়ারম্যান-১), আওলাদ হোসেন সাগর (শিক্ষক চবি- ভার্চ্যুয়াল), নুরুল ইসলাম( শিক্ষক), আব্দুল হান্নান আজাদ, আরিফুর রহমান, মুহাম্মদ রুহুল আমিন, নুরুল মোস্তফা জুয়েল, ওয়াহেদ রাসেল, মাঈনুল ইসলাম, আতিকুর রহমান রাব্বি, আনসারুল করিম, অহিদুল ইসলাম, সৈকত নূর পুষ্প, নাছিম উদ্দীন, মেহেদী হাসান প্রমুখ।

আলোচনায় বক্তারা বলেন, এলাকার সবার সাথে সম্প্রীতি বাড়াতে এ ধরনের আয়োজন ফলপ্রসূ হবে। তাছাড়া শিক্ষা ও সংস্কৃতির প্রতি মনোযোগ বাড়াতে হবে। সারাদেশে এটি ক্রাইমজোন হিসেবে খ্যাত বিধায় সন্ত্রাস, চাঁদাবাজি ও জোরদখল এড়িয়ে যাওয়ার চেষ্টার পাশাপাশি খুন খারাবির ক্ষেত্রে নিরপরাধ কেউ যাতে মামলার আসামি না হয় সেদিকে বিশেষ দৃষ্টি দিতে হবে। আলোচনা শেষে কুপন ড্র এর মাধ্যমে বিজয়ীদের পুরস্কার প্রদান করেন ৯নং ওয়ার্ডের বিশিষ্ট জনেরা।


সংবাদটি শেয়ার করুন
 
 0   
  
      

আরো সংবাদ