ক্যাম্পে আবারও আগুন, পরিকল্পিত দাবী রোহিঙ্গাদের - কক্সবাজার কন্ঠ

বৃহস্পতিবার, ২৩ মার্চ ২০২৩ ৯ই চৈত্র, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

বৃহস্পতিবার

প্রকাশ :  ২০২৩-০৩-০৫ ১৩:১৯:২০

ক্যাম্পে আবারও আগুন, পরিকল্পিত দাবী রোহিঙ্গাদের

রোহিঙ্গা ক্যাম্পে অগ্নিকান্ডের ঘটনায় মামলা দায়ের

নিজস্ব  প্রতিবেদক : কক্সবাজারের উখিয়ার বালুখালী রোহিঙ্গা শিবিরের আগুন ৩ ঘন্টা পর নিয়ন্ত্রণে এসেছে বলে জানিয়েছেন ফায়ার সার্ভিসের কক্সবাজার স্টেশনের উপ সহকারি পরিচালক অতীশ চাকমা।

তিনি জানান, ৬ টার দিকে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনা সম্ভব হয়েছে। তবে তিনি আগুনের সূত্রপাত ও ক্ষয়-ক্ষতির পরিমাণ নিশ্চিত করতে পারেননি। তিনি জানান, আগুনের সূত্রপাত ও ক্ষত-ক্ষতি নির্ধারণে কাজ চলছে। তা বলতে সময় লাগবে।

রোববার (৫ মার্চ) বিকাল ৩ টার দিকে বালুখালীর ১১ নম্বর ক্যাম্পের বি বøকের একটি ঘর থেকে এ আগুনের সূত্রপাত হয়। আগুন মূহুর্তের মধ্যে ৯, ১০, ১২ নম্বর ক্যাম্পে সরিয়ে পড়েছে।

উখিয়া থানার ওসি শেখ মোহাম্মদ আলী জানিয়েছেন, ফায়ার সার্ভিসের ৯টি ইউনিটের চেষ্টায় আগুন নিয়ন্ত্রণে এসেছে। এ পর্যন্ত ২ হাজারের কাছা-কাছি ঘর পুড়ে গেছে বলে ধারণা করা হলেও তা নিশ্চিত করে বলতে সময় লাগবে। এ পর্যন্ত কোনো হতাহতের তথ্য পাওয়া যায়নি।

ক্যাম্পে নিয়োজিত ৮ এবিপিএন এর সিনিয়র সহকারি পুলিশ সুপার ফারুক আহমেদ জানিয়েছেন, ৩ টার দিকে হঠাৎ করে আগুন দেখা যায়। কিভাবে আগুনের সূত্রপাত হয়েছে তা নিশ্চিত হওয়া যায়নি। ক্যাম্পের ঘরগুলো পাশাপাশি হওয়ায় আগুন ১২, ১১, ১০ ও ৯ নম্বর ক্যাম্পে সরিয়ে পড়েছে।

আগুনের সূত্রপাত কি কারণে তা নিশ্চিত হওয়া না গেলেও সন্দেহজনক এক যুবকে আটক করেছে এপিবিএন ও পুলিশ। আটক যুবককে জিজ্ঞাসাবাদের পরে বিস্তারিত বলা যাবে।

ঘটনাস্থলে থাকা অতিরিক্ত শরনার্থী ত্রাণ ও প্রত্যাবাসন কমিশনার মোহাম্মদ সামছু-দ্দৌজা জানিয়েছেন, প্রাথমিক অবস্থায় ২ হাজারের মত ঘর পুড়েছে বলে ধারণা করা হচ্ছে। আগুনের কারণ এখন বলা যাচ্ছে না। হতাহতের কোনো তথ্যও পাওয়া যায়নি।

তবে ক্যাম্পের এ আগুনকে পরিকল্পিত নাশকতা বলেছেন রোহিঙ্গারা। ওই ক্যাম্পের ক্ষতিগ্রস্থ বাসিন্দা আবলু কামাল, আবদুল গফুর ও শামসুল আলম জানিয়েছেন, আরসা সন্ত্রাসীরা এ আগুন ধরিয়ে দিয়েছে।

এর আগে কক্সবাজারের উখিয়া এবং বালুখালীর রোহিঙ্গা ক্যাম্পে একাধিকবার অগ্নিকাÐের ঘটনা ঘটেছে। এতে পুড়ে গিয়েছিল ঘরবাড়ি ও দোকানপাট।

প্রসঙ্গত, একই ক্যাম্পে ২০২১ সালের ২২ মার্চ ভয়াবহ অগ্নিকান্ডের ঘটনা ঘটে ছিলো। ওই সময় ১১ জনের মৃত্যু, ৫ শতাধিক আহত হয়। পুঁড়ে গিয়ে ছিল ৯ হাজারের বেশি ঘর।

আরো সংবাদ