খুরুশকূলে মৎস্য ঘের থেকে দুই জেলের মরদেহ উদ্ধার - কক্সবাজার কন্ঠ

সোমবার, ২৪ জুন ২০২৪ ১০ই আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

সোমবার

প্রকাশ :  ২০২৪-০৫-১৭ ১৪:০১:১২

খুরুশকূলে মৎস্য ঘের থেকে দুই জেলের মরদেহ উদ্ধার

খুরুশকূলে মৎস্য ঘের থেকে দুই জেলের মরদেহ উদ্ধার

নিজস্ব প্রতিবেদক :  কক্সবাজার সদর উপজেলার খুরুশকূল আশ্রয়ণ প্রকল্প সংলগ্ন মৎস্য ঘেরের পাশ দুই জেলের মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে।

শুক্রবার (১৭ মে) বেলা ১২ টায় উপজেলার খুরুশকূল ইউনিয়নের আশ্রয়ণ প্রকল্প সংলগ্ন মনুপাড়া থেকে মরদেহ দুটি উদ্ধার করা হয়।
কক্সবাজার সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. রাকিবুজ্জামান এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

নিহতরা হলেন: কক্সবাজার সদরের খুরুশকূল ইউনিয়নের মনুপাড়ার বাসিন্দা জামাল হোসেনের ছেলে আব্দুল খালেক (২৫) এবং একই এলাকার আবু তাহেরের ছেলে মো. ইয়াছিন আরাফাত (২৪)। তারা দুইজনই পেশায় জেলে।

স্থানীয়দের বরাতে ওসি রাকিবুজ্জামান বলেন, সকালে সদরের খুরুশকূল ইউনিয়নের মনুপাড়ায় জনৈক শামশুল হুদার মৎস্য ঘেরের পাশে দুই ব্যক্তির মরদেহ পড়ে থাকার খবর দেয় স্থানীয়রা। পরে পুলিশের একটি দল ঘটনাস্থলে পৌঁছে মৎস্য ঘেরের বাঁধের ওপর উপুড় অবস্থায় দুজনের মরদেহ উদ্ধার করে।

তিনি আরও বলেন, নিহতদের শরীরে আঘাতের কোন চিহ্ন না থাকলেও বৈদ্যুতিক শকের মত পোড়া ক্ষত রয়েছে। প্রাথমিকভাবে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে মৃত্যু হয়েছে বলে পুলিশ ধারণা করা হলেও প্রকৃত কারণ নিশ্চিত হওয়া যায়নি। ঘটনার রহস্য উদঘাটনে পুলিশ খোঁজ খবর নিচ্ছেন বলে ওসি রাকিবুজ্জামান জানান।

খুরুশকূল ইউপি চেয়ারম্যান মো. শাহজাহান ছিদ্দিকী বলেন, সকালে স্থানীয়দের কাছ থেকে মনুপাড়াস্থ মৎস্য ঘেরের পাশে দুই যুবকের মরদেহ পড়ে থাকার খবর পেয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শনে পৌঁছাই। পরে তিনি বিষয়টি পুলিশকে অবহিত করি।

কি কারণে মৃত্যু হয়েছে তা নিশ্চিত হওয়া না গেলেও নিহতদের শরীরে বৈদ্যুতিক শকের চিহ্ন রয়েছে বলেও জানান স্থানীয় এ ইউপি চেয়ারম্যান।

নিহত ইয়াছিনের বাবা আবু তাহের জানান, বৃহস্পতিবার রাত ১০ টার দিকে তার ছেলে বাড়ি থেকে বের হয়। পরে রাতে সে বাড়িতে ফিরেনি। শুক্রবার সকালে সম্ভাব্য বিভিন্ন স্থানে খোঁজাখুঁজির পরও তার সন্ধান পাননি। পরে মনুপাড়াস্থ একটি মৎস্য ঘেরের পাশে তার মৃতদেহ পড়ে থাকার খবর দেয় স্থানীয়রা। তিনি বলেন, কারা, কি কারণে এ খুনের ঘটনা ঘটিয়েছে তা জানি না।

নিহতের স্বজনরা বলছেন, নিহতরা পেশায় জেলে। তাদের সঙ্গে কারও পূর্ব শত্রুতা ছিল না। তাদের শরীরে মারধর ও বৈদ্যুতিক শকের আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। ঘটনাটি হত্যাকাণ্ড বলে দাবি স্বজনদের।

নিহতদের মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য কক্সবাজার জেলা সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে বলে জানান ওসি মে. রাকিবুজ্জামান।

আরো সংবাদ