চকরিয়ায় হাইড্রোলিক হর্ন ব্যবহার বন্ধে অভিযান - কক্সবাজার কন্ঠ

বৃহস্পতিবার, ৮ ডিসেম্বর ২০২২ ২৩শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

বৃহস্পতিবার

প্রকাশ :  ২০২২-১১-০৯ ১৩:২৭:৪৮

চকরিয়ায় হাইড্রোলিক হর্ন ব্যবহার বন্ধে অভিযান

চকরিয়ায় হাইড্রোলিক হর্ন ব্যবহার বন্ধে অভিযান
সংবাদটি শেয়ার করুন

নিজস্ব প্রতিবেদক :  কক্সবাজার পরিবেশ অধিদপ্তর ও চকরিয়া উপজেলা প্রশাসনের যৌথ উদ্যোগে হাইড্রোলিক হর্ন ব্যবহার বন্ধে অভিযান পরিচালিত হয়েছে। বুধবার (৯ নভেম্বর) চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়কের চকরিয়া মাতামুহুরি ব্রীজ এলাকায় এ অভিযান পরিচালিত হয়।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানাগেছে, যানবাহনে অনুমোদিত শব্দের মানমাত্রা অতিক্রমকারী হাইড্রোলিক হর্ণ ব্যবহার করে উচ্চমাত্রায় শব্দ সৃষ্টির দায়ে বাংলাদেশ পরিবেশ সংরক্ষণ আইন ১৯৯৫ (সংশোধিত ২০১০) ও শব্দদূষণ (নিয়ন্ত্রণ) বিধিমালা ২০০৬ অনুযায়ী ৬টি বাস ও ১টি পণ্যবাহী ভ্যান এর ড্রাইভারকে ৭টি মামলায় মোট ৭ হাজার ৫০০ টাকা জরিমানা আদায় করা হয়। পাশাপাশি অনুমোদিত শব্দের অতিরিক্ত মানমাত্রার শব্দ সৃষ্টিকারী ১৪টি হাইড্রোলিক হর্ণ জব্দ করা হয়।

চকরিয়া উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) মো. রাহাত উজ জামান এ মোবাইল কোর্টে বিচারিক দায়িত্ব পালন করেন। বিচারিক কার্যক্রমে প্রসিকিউটর হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন কক্সবাজার পরিবেশ অধিদপ্তর কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক সাইফুল ইসলাম। এ সময় আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা উপস্থিত থেকে সার্বিক সহযোগিতা প্রদান করেন।

এ বিষয়ে কক্সবাজার পরিবেশ অধিদপ্তর কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক সাইফুল ইসলাম কক্সবাজার কন্ঠ জানান, শব্দ দূষণের অন্যতম কারণ যানবাহনে উচ্চ মাত্রায় হাইড্রোলিক হর্ন ব্যবহার। হাইড্রোলিক হর্ন ব্যবহার নিষিদ্ধ হলেও চালকরা এ হর্ন ব্যবহার করছে। বিকট উচ্চ শব্দে মানুষের শ্রবণ শক্তি কমে যাওয়াসহ নানা শারিরীক সমস্যার সৃষ্টি হচ্ছে। তিনি পরিবেশ অধিদপ্তর কক্সবাজার জেলা কার্যালয়ের পক্ষ থেকে এ ধরণের অভিযান অব্যাহত থাকবে বলে জানান।

এ নিয়ে বিষেশজ্ঞরা বলছেন, শব্দ দূষণের কারণে মানসিকভাবে প্রতিবন্ধী হয়ে পড়তে পারে শিশুরা। এজন্য হাইড্রোলিক হর্নের ব্যবহার বন্ধসহ সবক্ষেত্রে অযথা শব্দ সৃষ্টি করা থেকে বিরত থাকা উচিত। তারা আরও বলেন, সুস্থ ও সভ্য সমাজ গঠনে অযথা হর্ন বাজানো বা অপ্রয়োজনীয় শব্দ বন্ধ করতে হবে। মাত্রাতিরিক্ত শব্দ মানসিক ক্লান্তি ও অবসাদ, উচ্চ রক্তচাপ, হৃদরোগ, স্নায়ুবিক সমস্যা, অমনোযোগিতা, স্মৃতিশক্তি হ্রাস এবং বধিরতাসহ প্রায় ৩০ ধরনের শারীরিক ও মানসিক সমস্যার সৃষ্টি করে।

 


সংবাদটি শেয়ার করুন
 
 0   
  
      

আরো সংবাদ