নাশকতার মামলায় বিএনপি-জামায়াতের ৮ নেতা-কর্মী গ্রেপ্তার - কক্সবাজার কন্ঠ

সোমবার, ২৪ জুন ২০২৪ ১০ই আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

প্রকাশ :  ২০২৩-১১-০১ ১৩:৩৬:২৫

নাশকতার মামলায় বিএনপি-জামায়াতের ৮ নেতা-কর্মী গ্রেপ্তার

নাশকতার মামলায় বিএনপি-জামায়াতের ৮ নেতা-কর্মী গ্রেপ্তার

নিজস্ব প্রতিবেদক : বিএনপি-জামায়াতের হরতাল ও অবরোধকে কেন্দ্র করে পুলিশের দায়ের করা নাশকতার মামলায় বিএনপি-জামায়াতের ৮ নেতা-কর্মীকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। বুধবার (১ নভেম্বর) অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেপ্তার করা হয়। এরমধ্যে কক্সবাজার সদর থানার পুলিশ ৭ জনকে এবং উখিয়া থানার পুলিশ একজনকে গ্রেপ্তার করেছে।

কক্সবাজার সদর থানার ওসি রকিবুজ্জামান জানিয়েছেন, পুলিশ কক্সবাজার শহরের বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালিয়ে এ পর্যন্ত ৭ জনকে গ্রেপ্তার করেছে। এরমধ্যে ৪ জন বিএনপি ও ৩ জন জামায়াতের রাজনীতির সাথে জড়িত। বুধবার দুপুরে গ্রেপ্তার ৭ জনকে সোমবার সদর থানায় দায়ের করা ২টি নাশকতার মামলায় আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে।

গ্রেপ্তার ৭ জন হলেন- বিএনপি নেতা নতুন ফিশারী ঘাট এলাকার মো. ওসমান গণি (২৬), দক্ষিণ রুমালিয়ার ছড়ার নুরুল আলম (৪৭), জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের যুগ্ম আহবায়ক উত্তর নুনিয়ার ছড়ার মো. আব্দুল্লাহ (২৯), পৌর ছাত্রদলের সাবেক সভাপতি শাহিনুল ইসলাম (৪১), জামায়াত নেতা বাঁশখালী এলাকার আব্দুল কাদের (২৬), আলীর জাহান এলাকার নুরুল আলম (৫৩), পূর্ব লারপাড়ার মো. দ্বীন ইসলাম (২০)।

অপরদিকে উখিয়া থানায় দায়ের করা মামলায় ইউনিয়ন স্বেচ্ছাসেবক দলের আহবায়ক হেলাল উদ্দিন সিকদারকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন উখিয়া থানার ওসি শেখ মোহাম্মদ আলী।

তিনি জানিয়েছেন, গেল মঙ্গলবার রাতে উখিয়া থানায় দায়ের করা নাশকতার মামলায় তাকে গ্রেপ্তার করা হয়। বুধবার দুপুরে গ্রেপ্তারকে আদালতে পাঠানো হয়েছে।

এদিকে হরতাল ও অবরোধকে কেন্দ্র করে কক্সবাজারে দুই দিনে ৬টি থানায় ৭টি মামলা দায়ের করেছে পুলিশ। এই ৭ টি মামলায় ১২২ জনকে আসামি করা হয়েছে।

এরমধ্যে গেল মঙ্গলবার উখিয়া থানায় উপ পরিদর্শক আবদুল ওয়াহেদ বাদী হয়ে একটি মামলা দায়ের করেন। যেখানে এজাহার নামীয় আসামি ৩৫ জন। কোটবাজার এলাকায় নাশকতার চেষ্টার ঘটনায় এই মামলাটি দায়ের করা হয়। গেল মঙ্গলবার টেকনাফ থানার উপ-পরিদর্শক মিল্টন মন্ডল বাদী হয়ে দায়ের করা মামলায় ২১ জনের নাম এজাহারে উল্লেখ করা হয়েছে। টেকনাফের হ্নীলা ইউনিয়নের মিনাবাজার এলাকায় নাশকতার চেষ্টা, পুলিশের উপর ইটপাটকেল নিক্ষেপ, ককটেল বিস্ফোরণের দায়ে এই মামলা দায়ের করা হয়েছে।

এর আগে সোমবার পুলিশ বাদী হয়ে কক্সবাজারের ৪টি থানায় ৫টি মামলা দায়ের করা হয়েছে। যেখানে বিএনপি ও জামায়াতের ৬৬ জন নেতা-কর্মীদের নাম উল্লেখ্য করে এজাহারনামীয় আসামি করা হয়েছে। মামলায় অজ্ঞাত আসামি করা হলেও তার সংখ্যা উল্লেখ করা হয়নি।

এরমধ্যে কক্সবাজার সদর থানায় ২টি, রামু, মহেশখালী ও ঈদগাঁও থানায় ১টি করে ৩টি মামলা দায়ের করা হয়েছে। রামু থানায় দায়ের করার মামলার বাদী উপ-পরিদর্শক মুহাম্মদ ইয়াছিন। যেখানে এজাহারনামীয় আসামি করা হয়েছে ৮ জনকে।

ঈদগাঁও থানায় দায়ের করা মামলাটির বাদী উপ-পরিদর্শক শফিকুল ইসলাম। মামলায় এজাহারনামীয় আসামী ১৫ জন। কক্সবাজার সদর থানায় দায়ের করা ২টি মামলার মধ্যে একটি বাদী উপ-পরিদর্শক ওবাইদুল হক। যে মামলাটিতে এজাহারভূক্ত আসামির নাম রয়েছে ১৯ জন। কক্সবাজার সদর থানার অপর মামলাটির বাদী উপ-পরিদর্শক মিঠুন সিংহ। যে মামলায় এজাহারে আসামি হিসেবে ১৪ জনের নাম উল্লেখ রয়েছে।

কক্সবাজারের পুলিশ সুপার মো. মাহাফুজুল ইসলাম জানিয়েছেন, দায়ের করা মামলার এজাহাভুক্ত আসামি এবং সংঘটিত ঘটনার ছবি ও ভিডিও দেখে শনাক্ত হওয়াদের গ্রেপ্তারে পুলিশ অভিযান অব্যাহত রেখেছে।

আরো সংবাদ