মিতু হত্যায় ফের আলোচনায় কিলিং স্কোয়াড প্রধান মুছা - কক্সবাজার কন্ঠ

বৃহস্পতিবার, ২৪ জুন ২০২১ ১০ই আষাঢ়, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

বৃহস্পতিবার

প্রকাশ :  ২০২১-০৫-১৩ ১০:১৭:২০

মিতু হত্যায় ফের আলোচনায় কিলিং স্কোয়াড প্রধান মুছা

মিতু হত্যায় ফের আলোচনায় কিলিং স্কোয়াড প্রধান মুছা
Spread the love

নিউজ ডেস্ক :  চট্টগ্রামে চাঞ্চল্যকর মিতু হত্যা মামলায় ফের আলোচনায় কামরুল সিকদার ওরফে মুছা। পিবিআই বলছে, ৩ লাখ টাকার বিনিময়ে বাবুল আকতারের নির্দেশে দলবল নিয়ে মুছাই হত্যা করে মিতুকে। নানা নাটকীয়তার পর বাবুল গ্রেপ্তার হলেও, এখন প্রশ্ন-মুছা কোথায়? তাকে পুলিশ তুলে নিয়ে গেছে-পরিবার এমন অভিযোগ করে এলেও পাঁচবছরেও তার মীমাংসা হয়নি। মাহমুদা মিতু হত্যা তদন্তে এখন নতুন মোড়। মামলায় ফেঁসে গেছেন তার স্বামী সাবেক এসপি বাবুল আকতার।

বুধবার নতুন যে মামলাটি দায়ের হয়েছে, সেখানে বাবুলের পরই দুই নম্বর আসামী কামরুল সিকদার ওরফে মুছা। আদালতে দেয়া দুই সাক্ষীর জবানবন্দির উদ্বৃতি দিয়ে পিবিআই বলছে, বাবুলের নির্দেশে মুছাই নেতৃত্ব দিয়েছে মিতু হত্যায়। যাতে অংশ নেয় মোট সাতজন।

মুছার বাড়ি রাঙ্গুনিয়ায়। থাকত বাকলিয়ায়। তবে তাকে ঘিরে রহস্য কাটছেনা। কেননা, ২০১৬ সালের জুনে তার স্ত্রী পান্না আকতার দাবি করেছিলেন, মুছাকে বাসা থেকে তুলে নিয়ে গেছে পুলিশ।

৫ বছরেও এ নিয়ে ধুম্রজাল কাটেনি। কেননা তার পরিবারের দাবি বরাবরই অস্বীকার করে এসেছেন পুলিশ কর্মকর্তারা। অস্বীকার করছেন এখনও। বলছেন, তাকে খোঁজার কথা।

তবে মামলা তদন্ত আর বিচারের স্বার্থেই মুছাকে খুঁজে বের করা জরুরি বলে মনে করেন  মানবাধিকার আইনজীবী অ্যাডভোকেট জিয়া হাবিব আহসান।

  1. বাবুল আকতার পুলিশে কর্মরত থাকাকালে তার সোর্স হিসেবে কাজ করতো মুছা। ক্লোজ সার্কিট ক্যামেরার ফুটেজে দেখা যায়, ২০১৬ সালের ৫ জুন মিতুকে হত্যার সময় ঘটনাস্থলে ছিলো মুছা। এছাড়া, ঘটনার কয়েক মিনিট পর মুছার সাথে বাবুলের ৩৫ সেকেন্ডের একটি ফোন রেকর্ডও পায় পুলিশ।

আরো সংবাদ