লকডাউনে ঈদ প্যাকেজ নিয়ে তৎপর হোটেলগুলো - কক্সবাজার কন্ঠ

শনিবার, ১৯ জুন ২০২১ ৫ই আষাঢ়, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

শনিবার

প্রকাশ :  ২০২১-০৫-০৭ ২৩:২১:০৫

লকডাউনে ঈদ প্যাকেজ নিয়ে তৎপর হোটেলগুলো

লকডাউনে ঈদ প্যাকেজ নিয়ে তৎপর হোটেলগুলো
Spread the love

নিউজ ডেস্ক :  দেশের প্রধান পর্যটন নগরী কক্সবাজারে করোনা সংক্রমণ প্রতিরোধে চলমান লকডাউন উপেক্ষা করেই দেয়া হচ্ছে ঈদ প্যাকেজ। সরকারিভাবে ১৬ মে পর্যন্ত দেশের সব পর্যটনকেন্দ্র বন্ধ রাখার নির্দেশনা রয়েছে। তবে ঈদুল ফিতর উপলক্ষে কক্সবাজারের বিভিন্ন হোটেল পর্যটকদের আকৃষ্ট করতে অনলাইন ও সোশ্যাল মিডিয়ায় ছাড়ের বিজ্ঞাপন দিচ্ছে।

মধ্য মার্চ থেকে দেশে সংক্রমণ বাড়তে থাকলে স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক এ জন্য পর্যটন ও বিনোদন কেন্দ্রগুলোকে দায়ী করেছিলেন। তিনি তখন দাবি করেন, পর্যটন কেন্দ্রগুলোতে মানুষের ভিড় বেড়ে যাওয়ায় সংক্রমণ বেড়েছে।

জানা যায়, বিশেষ কিছু দিনে কক্সবাজার সৈকতে পর্যটকের ভিড় বাড়ে। এর মধ্যে ঈদের ছুটি অন্যতম। আসন্ন ঈদে বেড়ানোর মতো তেমন ছুটিরও সুযোগ থাকছে না। এর পরও সাগর পারের বিলাসবহুল হোটেলগুলো বিভিন্ন অনলাইনসহ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বিশেষ ছাড় দেওয়ার বিজ্ঞাপন দিয়ে আতিথেয়তা গ্রহণের আহ্বান জানাচ্ছে। করোনাকালের এ রকম বিজ্ঞাপন নিয়ে উঠেছে নানা প্রশ্নও।

জানতে চাইলে কক্সবাজারের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) মোহাম্মদ আমিন আল পারভেজ জানান, ‘এক জেলার মানুষ অন্য জেলায় যাওয়ার সুযোগই এখন নেই। কক্সবাজারে ভ্রমণকারীদের আসা অনেক আগেই নিষিদ্ধ করা হয়েছে। গোটা পর্যটনকেন্দ্রটিই যেখানে বন্ধ, সেখানে নতুন করে পর্যটকদের প্রলোভন দেওয়ার কাজটি রীতিমতো অপরাধ।’

তিনি বলেন, পর্যটনকেন্দ্রের সব কিছুই বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। তাই প্রলুব্ধ করে কক্সবাজারের কোনো হোটেল কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে যদি ভ্রমণকারীদের আনার প্রমাণ মেলে তাহলে আইনগত পদক্ষেপ নেওয়া হবে।

তবে হোটেল-মোটেল বন্ধ রাখার কোনো সুনির্দিষ্ট নির্দেশনা না থাকার বিষয়টি নিয়ে জেলা প্রশাসনের কোনো বক্তব্য পাওয়া যায়নি। এ নিয়ে কক্সবাজার হোটেল-মোটেল, গেস্ট হাউস মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক আবুল কাশেম সিকদার বলেন, ‘গত ৪ এপ্রিল কক্সবাজার জেলা প্রশাসনের জারি করা নির্দেশনায় রেস্তোরাঁগুলো খোলা রেখে প্যাকেটজাত করে খাবার বিক্রির কথা রয়েছে। তবে আবাসিক হোটেলের ব্যাপারে কিছু উল্লেখ নেই।’

হোটেল সি-গালের প্রধান নির্বাহী (সিইও) রুমী সিদ্দীকি বলেন, ‘হোটেলগুলোতে ঈদের বিশেষ ছাড় দেওয়ার অনলাইন বিজ্ঞাপন অনেকেই প্রতিবছরই দিয়ে থাকে। সম্ভবত এবারও তাই দিয়েছে।’ তিনি বলেন, জেলা প্রশাসন হোটেল বন্ধ করেনি। তাই স্বাস্থ্যবিধি মেনে ৫০ শতাংশ হোটেলকক্ষ ভাড়া দেওয়ার প্রস্তুতি তাদের রয়েছে।

কক্সবাজারের পাঁচতারা হোটেল সায়মন বিচ রিসোর্ট। এই হোটেলটি ঈদ উপলক্ষে পর্যটকদের আকৃষ্ট করার জন্য ফেসবুকে নানা প্রচারণা চালাচ্ছে। তারা পর্যটকদের জন্য ‘ঈদ রিক্রিয়েশন প্যাকেজ’ চালুর ঘোষণা দিয়েছে তাদের ফেসবুক পেজে। শুধু কক্সবাজারই নয়, ঢাকার আশপাশে বিভিন্ন রিসোর্ট এখন পর্যটকদের আকৃষ্ট করতে পুরোপুরি সক্রিয়। সূত্র- কালের কন্ঠ

আরো সংবাদ