সংক্রমণ বেড়ে যাওয়ায় সব পর্যটন কেন্দ্র বন্ধ থাকবে - কক্সবাজার কন্ঠ

বুধবার, ২৮ জুলাই ২০২১ ১৩ই শ্রাবণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

প্রকাশ :  ২০২১-০৬-১২ ১৪:৫২:১৫

সংক্রমণ বেড়ে যাওয়ায় সব পর্যটন কেন্দ্র বন্ধ থাকবে

সংক্রমণ বেড়ে যাওয়ায় সব পর্যটন কেন্দ্র বন্ধ থাকবে
Spread the love

নিজস্ব প্রতিবেদক : স্থানীয় সরকার বিভাগের সিনিয়র সচিব হেলালুদ্দীন আহমদ বলেছেন, করোনা সংক্রমণ বেড়ে যাওয়ায় সরকারের নির্দেশনানুযায়ী হোটেল-মোটেলসহ কক্সবাজারের সব পর্যটনকেন্দ্র বন্ধ থাকবে।তিনি শনিবার (১২ জুন) কক্সবাজারে জেলা প্রশাসনের শহিদ এটি এম জাফর আলম সম্মেলন কক্ষে জেলার কোভিড ১৯ এর চলমান পরিস্থিতি নিয়ে জেলা প্রশাসনের আয়োজিত সমন্বয় সভায় সভাপতির বক্তব্যে এ কথা বলেন। সচিব বলেন, নো-মাস্ক নো সার্ভিস পদ্ধতির মাধ্যমে সকল নাগরিককে সেবা প্রদান করতে হবে।

সভায় সংসদ সদস্য আশেক উল্লাহ রফিক, সংসদ সদস্য কানিজ ফাতেমা আহমেদ, জেলা প্রশাসক মো. মামুনুর রশীদ, জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মোস্তাক আহমেদ চৌধুরী, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি অ্যাডভোকেট ফরিদুল ইসলাম চৌধুরী এবং সাধারণ সম্পাদক ও মুজিবুর রহমান, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার পংকজ বড়–য়া, সিভিল সার্জন ডা. মাহবুবুর রহমান, মেডিকেল কলেজের অধ্যক্ষ অনুপম বড়–য়া, পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি মো. নজিবুল ইসলাম, প্রেসক্লাব সভাপতি আবু তাহের চৌধুরী বক্তব্য রাখেন। এ সময় সরকারি পদস্থ কর্মকর্তা, জেলা স্বাস্থ্যবিভাগের চিকিৎসক, জনপ্রতিনিধিসহ সংশ্লিষ্টরা উপস্থিত ছিলেন।

এদিকে  দীর্ঘ ১২ বছর প্রতিক্ষার পর অবশেষে আলোর মুখ দেখতে যাচ্ছে জেলার রাজনীতি এবং সংস্কৃতি চর্চার অন্যতম প্রাণকেন্দ্র কক্সবাজার ইনস্টিটিউট ও পাবলিক লাইব্রেরী। ইতোমধ্যে শেষ হয়েছে অবকাঠামো নির্মাণের কাজ। তুলির আচঁড় ও নানা সাজ-সজ্জায় আধুনিকায়ন করা হয়েছে ঐতিহ্যবাহী শহীদ সুভাষ হল। শনিবার (১২ জুন) কক্সবাজার ইনস্টিটিউট ও পাবলিক লাইব্রেরীর কাজের অগ্রগতি পরিদর্শন করেছেন স্থানীয় সরকার বিভাগের সিনিয়র সচিব মো. হেলালুদ্দীন আহমদ। কাজের অগ্রগতি দেখে তিনি সন্তোষ প্রকাশ করেন।

পরিদর্শন শেষে তিনি সাংবাদিকদের বলেন, জেলার রাজনীতি এবং সংস্কৃতি চর্চার অন্যতম প্রাণকেন্দ্র কক্সবাজার ইনস্টিটিউট ও পাবলিক লাইব্রেরী। এটি বহু জ্ঞানী-গুণী ও বরণ্য ব্যক্তিদের স্মৃতি বিজড়িত। নানা জটিলতা কাটিয়ে ঐতিহ্যবাহী এই প্রতিষ্ঠানের নির্মাণ কাজ শেষ হয়। বর্তমানে এসি স্থাপন, দৃষ্টিনন্দন সীমান প্রাচীর ও শহীদ দৌলত ময়দানের মঞ্চ স্থানান্তর, হলের বাইরে সাজ-সজ্জাসহ টুকাটুকি কিছু কাজ বাকি আছে। যা শিগগিরই শেষ হবে। তিনি আরও বলেন, আনুষ্ঠানিকভাবে এটি উদ্বোধন হওয়ার পর সবার জন্য উন্মুক্ত করা হবে। এতে করে দীর্ঘদিন পর কক্সবাজারের রাজনৈতিক, সাংস্কৃতিক ও নাট্যকর্মীদের পদচারণায় আবারও মুখরিত হবে ঐতিহ্যবাহী এই পাবলিক লাইব্রেরী।

আরো সংবাদ